Press "Enter" to skip to content

আলাদা আলাদা থিমের ওপর সমাজকে নতূন বার্তা দেবার চেষ্টা এবার

মালদাঃ আলাদা আলাদা থিমের ওপর সাজিয়ে এবারে বেশিরভাগ পূজোর আয়োজন করা হচ্ছে।

কোথাও ভ্রুণ হত্যার বিরুদ্ধে গড়ে তোলা হচ্ছে পূমোণ্ডপ আবার কোথাও “অনন্ত দর্শন”, “অন্তহীন প্রকৃতি”

এমন ভাবনা নিয়ে তৈরি হচ্ছে পূজোমণ্ডপ ।

মালদা শহরের বিগ বাজেটের পুজোগুলির মধ্যে এবারে থিমের ছড়াছড়ি।

প্রতিযোগিতার আসরে কেউ কাউকে এক ইঞ্চি জায়গা ছাড়তে চাইছে না।

এবছর মালদা শহরের ২ নম্বর গভর্মেন্ট কলোনি এলাকায় অবস্থিত ইউনাইটেড ক্লাব এন্ড লাইব্রেরির

ভ্রুন হত্যার বিরুদ্ধে পূজোমণ্ডপ গড়ে তুলতে চলেছে।

মানুষকে সচেতন করতেই বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে ওই পুজো কমিটির কর্মকর্তারা।

ইউনাইটেড ক্লাব এন্ড লাইব্রেরীর পূজামণ্ডপে আসলেই দেখা যাবে বিভিন্ন মডেলের মাধ্যমে ভ্রুণ হত্যার

কিছু দৃশ্যাবলি এবং তার বিরুদ্ধে গর্জে ওঠা মানুষের কন্ঠস্বর।

এছাড়াও থাকবে ভ্রুণ হত্যার বিরুদ্ধে সচেতনতামূলক কিছু প্রচার।

“পুষ্প তোমার কি অপরাধ” এমন কিছু শব্দের উপর গড়ে উঠছে পুজোর থিম।

ওই ক্লাবের সহ-সম্পাদক শানু দাস জানিয়েছেন, তাদের পুজোর এবার 65 তম বর্ষ ।

প্রতিমা তৈরি করছেন মৃৎশিল্পী সজল পন্ডিত। নবদ্বীপের চোখধাঁধানো আলোকসজ্জায় থাকছে

মটু-পাতলু থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের ছোটদের আকর্ষণ জনক কার্টুনের কিছু দৃশ্যাবলী।

তবে এবারে এই ক্লাবের মূল আকর্ষণ ভ্রুণ হত্যার বিরুদ্ধে প্রচার।

পূজামণ্ডপের মধ্যেই বিভিন্ন মডেলের মাধ্যমে তুলে ধরা হচ্ছে এটি। প্রতিমা আধুনিক সজ্জায় সজ্জিত।

চতুর্থীতে পুজোর উদ্বোধন করা হবে। এই ক্লাবের পুজোর বাজেট প্রায় ৪ লক্ষ টাকা।

অন্যদিকে মালদা শহরের কৃষ্ণ কালিতলা এলাকার কল্যাণ সমিতি ও গ্রন্থাগারের থিম “অনন্ত দর্শন” “অন্তহীন প্রকৃতি”।

অর্থাৎ দেবী দুর্গার মাধ্যমেই সমস্ত দেব দেবীর আবির্ভাব তুলে ধরা হবে পূজোমণ্ডপে।

বিভিন্ন কারুকার্যের মাধ্যমে থিম গড়ে তুলছেন শিল্পী দিব্যেন্দু সাহা।

প্রকৃতির যে কোনো শেষ নেই , তারও কিছু দৃশ্যাবলি এই পূজামণ্ডপে তুলে ধরা হচ্ছে।

দুমাস ধরে চলছে কল্যাণ সমিতি ও গ্রন্থাগারের পূজামণ্ডপ তৈরীর কাজ।

আলাদা আলাদা থিমের জন্য অনেক বুদ্ধি খাটিয়েছেন আয়োজকরা

পূজা কমিটির এক কর্মকর্তা মানস সরকার জানিয়েছেন, তাদের পরিবারের ৪১ তম বর্ষ ।

এক মাস আগে এই পুজোর খুঁটিপুজোকে ঘিরে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল।

পঞ্চমীতে পুজোর উদ্বোধনের দিন দুঃস্থদের বস্ত্র বিতরণ করা হবে ।

চন্দননগরের আলোকসজ্জায় ব্যাপক আকর্ষণ বাড়াবে দর্শনার্থীদের।

গত বছর বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সংবাদমাধ্যম পক্ষ থেকে ১৯টি পুরস্কার পেয়েছিল এই ক্লাবের মৌমাছির চাকের পূজোর থিম ।

পাশাপাশি বিশ্ব বাংলা পুরস্কার পেয়েছিলো এই ক্লাব।

এবারেও তারা বিভিন্নভাবে পুরস্কৃত হবে বলে দাবি করেছেন।

কল্যাণ সমিতি ও গ্রন্থাগারের পুজোমণ্ডপ তৈরি শিল্পী দিব্যেন্দু সাহা বলেন,

দীর্ঘদিন ধরে মহাকাব্য- চণ্ডীপাঠের মত পুঁথিগুলো দেখেই এই থিমের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে ।

দেবী দুর্গার মাধ্যমে যে সমস্ত দেবদেবীর আবির্ভাব তা বিভিন্ন কারুকার্যের মাধ্যমে পূজামণ্ডপে তুলে ধরা হবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

2 Comments

Leave a Reply

Mission News Theme by Compete Themes.
error: Content is protected !!