Press "Enter" to skip to content

দশমীর রাতে মহিলার শ্লীলতাহানির ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোষ্ঠী সংঘর্ষ

  • পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে আক্রান্ত পুলিশ
  • আহত তিন পুলিশ কর্মী সহ বেশ কয়েকজন

রায়গঞ্জঃ দশমীর রাতে প্রতিমা বিসর্জনের শোভাযাত্রায় এক মহিলার শ্লীলতাহানির ঘটনাকে কেন্দ্র

করে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষ, গুলি চালনার অভিযোগ। পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে আক্রান্ত পুলিশ।

আহত তিন পুলিশ কর্মী সহ বেশ কয়েকজন।

ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ শহরের বকুলতলা এলাকায়।

ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশবাহিনী পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

আহতদের রায়গঞ্জ গভর্মেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শ্লীলতাহানির ঘটনার প্রতিবাদে আন্দোলনে তৃনমূল ছাত্র সংগঠন টিএমসিপি।

অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে রায়গঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের নির্যাতিতা মহিলার।

ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।

দশমীর রাতে এই ঘটনা ঘটার আগে সন্ধ্যা থেকে প্রতিমা নিরঞ্জনের জন্য রায়গঞ্জ শহরে প্রতিটি

পূজো কমিটি রায়গঞ্জ শহরের রাজপথে শোভাযাত্রা বের করে।

পূজো কমিটিগুলির এই শোভাযাত্রা দেখতে রাস্তার দুধারে হাজার মানুষের সমাগম হয়।

দশমীর রাতে এগারোটা নাগাদ শহরের বকুলতলা এলাকায় এক মহিলার শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ ওঠে এক যুবকের বিরুদ্ধে।

নির্যাতিতা মহিলা প্রতিবাদও করে।।এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে ওঠে এলাকা।

স্থানীয় সূত্রের খবর,।পরে ওই অভিযুক্ত যুবক দলবল নিয়ে এসে ওই নির্যাতিতা মহিলার উপর

আবার চড়াও হলে এলাকার যুবকদের সাথে ব্যাপক সংঘর্ষ বেধে যায়।

অভিযোগ দুস্কৃতীরা গুলিও চালায়।

ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন রায়গঞ্জ থানার টাউন বাবু সন্দীপ চক্রবর্তী সহ বিশাল পুলিশবাহিনী।

পুলিশের উপরেও হামলার ঘটে। রায়গঞ্জ থানার টাউন বাবু সন্দীপ চক্রবর্তী সহ তিন পুলিশ কর্মী

আহত হন।

আহত হন দুপক্ষের আরও বেশ কয়েকজন। এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

দশমীর রাতে ঝামেলা বাড়ার পর মাঠে নামে রেপিড এক্শান ফোর্স

পরে রায়গঞ্জ থানা থেকে আরএএফ এনে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে পুলিশ।

প্রকাশ্যে জনাকীর্ণ এলাকায় থানা থেকে মাত্র দুশো মিটার দূরে এক মহিলার শ্লীলতাহানির ঘটনার

প্রতিবাদে স্থানীয় বাসিন্দারা রায়গঞ্জ থানায় বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে।

অভিযোগ রায়গঞ্জ থানার বাইরের কিছু অংশে ভাঙচুরও করে উত্তেজিত বিক্ষোভকারীরা।

নির্যাতিতা ও-ই মহিলা অভিযুক্তের বিরুদ্ধে রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পাশাপাশি কঠোর শাস্তি দাবি তুলেছেন।

এই ঘটনার তদন্ত করে কঠোর ব্যাবস্থা নেওয়ার দাবি তুলেছেন তৃনমূল ছাত্র পরিষদের উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি অনুপ কর।

অবিলম্বে পুলিশ যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহন না করলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামার হুমকি দিয়েছে তৃনমূল ছাত্রপরিষদ।

উত্তর দিনাজপুর জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমার জানিয়েছেন,।অনেক রাতে ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

Spread the love

Be First to Comment

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!