Press "Enter" to skip to content

পঞ্চায়েতের দলীয় সদস্যকে কোপানোর অভিযোগ দলেরই অন্য পঞ্চায়েত সদস্যের বিরুদ্ধে




মালদাঃ পঞ্চায়েতের দলীয় সদস্যকে ভোজালি দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপানোর অভিযোগ

দলেরই অপর এক পঞ্চায়েত সদস্যের বিরুদ্ধে।

ঘটনাটি ঘটেছে মালদার কালিনয়াচক থানার আলীনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের বাজার এলাকায়।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আক্রান্ত পঞ্চায়েত সদস্য।

ঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত পঞ্চায়েত সদস্য ও তার সাথীরা।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আহত ব্যক্তির নাম ফরিদুল ইসলাম ওরফে ফিটু (৩২)।

জোৎপরম  গ্রামের বাসিন্দা ফরিদুল আলীনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল সদস্য।

পঞ্চায়েতের পূর্ত কর্মাধক্ষ্য পদে রয়েছেন তিনি।

অভিযুক্ত মাইদুর শেখও একই পঞ্চায়েতের তৃণমূলের সদস্য।

বুধবার রাত ৯ টা নাগাদ বাজার এলাকায় পঞ্চায়েত সদস্যদের মাঝে বিবাদ শুরু হয়।

পঞ্চায়েতের কাজ নিয়ে তর্ক-বিতর্ক চলাকালীন হাতাহাতি শুরু হয়।

এরপরই ফরিদুল ইসলামকে ভোজালি দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপ মারে মাইদুর শেখ ও তার দলবল বলে অভিযোগ।

চিৎকারে গ্রামবাসীরা ছুটে আসতেই পালিয়ে যায় অভিযুক্ত পঞ্চায়েত সদস্য মাইদুর শেখ সহ তার দলবল।

তড়িঘড়ি স্থানীয়রা আক্রান্ত তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্যকে সিলামপুর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান।

আক্রান্ত পঞ্চায়েত সদস্যের গলায় , মাথায় , বুকে,  পেটে সহ শরীরের একাধিক জায়গায়

আঘাত গুরুতর থাকায় চিকিৎসকেরা তাঁকে স্থানান্তরিত করে দেন মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

সেখানেই আশঙ্কাজনক অবস্থায় চলছে তাঁর চিকিৎসা।

১৭ আসন বিশিষ্ট আলীনগর গ্রাম পঞ্চায়েতে গত নির্বাচনে তৃণমূল  ১৪ টি , বিজেপি ২ টি ও কংগ্রেস ১ টি আসন পায়।

তবে সকল সদস্যই তৃণমূলে চলে আসায় বিরোধী শুণ্য পঞ্চায়েত গঠন করে তৃণমূল।

দশ জন সদস্যের সম্মতিতে প্রধান হন রুমি বিবি।

তারপর থেকে দুটি গোষ্ঠী হয়ে যায় পঞ্চায়েতে।
সম্প্রতি গ্রাম পঞ্চায়েতে বেশকিছু টেন্ডার হয়েছে।

এই কাজের বরাত নিয়ে বিরোধ চলছিল উভয়ের মধ্যে।

তার জেরেই এই ঘটনাটি ঘটেছে বলে আহতের পরিবারের দাবি।

গোটা ঘটনায় চরম অস্বস্তিতে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব।

তৃণমূলের মালদা জেলার কার্যকরী সভাপতি দুলাল সরকার বলেন, “কাজের বখরা নিয়ে গোলমাল হয়েছে,

এটা সঠিক কথা নয়।

এরা দুজনেই একই গ্রামের বাসিন্দা।

এদের মধ্যে পারিবারিক বিরোধ ছিল যার জেরে এই ঘটনা ঘটেছে।

উভয় পক্ষকে সংযত থাকতে বলা হয়েছে”।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আহতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্তে নেমেছে কালিয়াচক থানার পুলিশ।

অভিযুক্তের খোঁজে পুলিশ তল্লাশি চালাচ্ছে।



Spread the love

Be First to Comment

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.