টাকার ‘রেকর্ড পতন’ ঠেকাতে হিমশিম খাচ্ছে মোদী সরকার

ভারতীয় মুদ্রা নিম্নমুখী

এজেন্সী

নয়া দিল্লীঃ টাকার দাম ক্রমাগত কমছে।

ডলারের তুলনায় টাকার দামের রেকর্ড পতনে রীতিমত অস্বস্তিতে মোদী সরকার।

বেশ কয়েক মাসের হিসাবে ‘টাকা’ এশিয়ার বাজারে সবচেয়ে তলানিতে থাকা মুদ্রা হিসাবে উঠে আসছে।

যা নিঃসন্দেহে ভারতীয় অর্থনীতির ওপর আশঙ্কার মেঘ ডেকে এনেছে।

বেশ কয়েক দিন থেকেই ১ ডলারের দাম ৭২ টাকার নিচে ঘোরাফেরা করছে।

টাকার দামের এই ক্রমহ্রাসমান অবস্থা বেশ কিছুদিন থেকেই চলছে।

কখনও দু তিন পয়সা বাড়ছে, তো কখনও আবার কমে যাচ্ছে।

এদিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কর্তাব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন কেন্দ্র সরকারের প্রশাসনিক আমলারা।

তাঁরা রীতিমত হিমশিম খাচ্ছেন পরিস্থিতি সামাল দিতে।

পরিস্থিতি সামাল দিতে বৈঠক

কীভাবে পরিস্থিতি ফের সচল রাখা যায়,  সেই বিষয়ে আরবিআই এর অফিসারদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় সরকারী আমলারা।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের পর এই প্রথম টাকার দাম ডলারের তুলনায় পড়ে যায় ১১.৬ শতাংশ।

বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন সময়ে অর্থ মন্ত্রকের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন ব্যাঙ্কের উচ্চপদস্থ অফিসাররা।

এদিকে বিদেশ সফর বা বিদেশে পড়তে যাবার জন্য আবেদন জানাচ্ছেন যে সমস্ত ভারতীয়রা, তাঁদের কপালে ভাঁজ পড়ছে।

তাঁদের অনেক বেশী টাকা খরচ করতে হচ্ছে বাইরে যাবার জন্য।

আমদানীতেও পড়ছে ব্যপক প্রভাব। বিদেশ থেকে মাল আনার পর দাম মেটানোর জন্য ভাবতে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের।

অনেকের বক্তব্য যে যখন মালের অর্ডার দেওয়া হয়েছিল তথন টাকার মূল্য বেশী থাকায় খরচও কম হচ্ছিল।

এখন টাকার মূল্য পড়ে যাওয়ায় ডলারে পয়সা দিতে খরচের ভার বেড়ে যাচ্ছে।

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক আপাতত মুদ্রার বাজারকে সচল রাখতে ব্যস্ত।

ডলার বিক্রির দিকে যেমন ঝুঁকছে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক তেমনইভাবেই , সেই সূত্র ধরে ফরেন এক্সচেঞ্জেও ঘাটতি দেখা দিতে শুরু করেছে।

যা এই মুহূর্তে ভারতীয় অর্থনীতির পক্ষে ভালো খবর নয়।

আপাতত বাজারে টাকার দাম তলানিতে ঠেকতে শুরু করায় প্রবাসী ভারতীয়দের দিকে তাকিয়ে সরকার।

যাতে তাঁদের গতিবিধির মাধ্যমে টাকার দামের ফারাকের সমস্যা কাটিয়ে ওঠা যায়।

তবে এই নিয়ে এখনও সেভাবে কিছু জানানো হয়নি সরকারী সূত্রের পক্ষ থেকে।

Please follow and like us:

Author: Bangla R khabar

Loading...