Press "Enter" to skip to content

বাঘ এবং ছাগল এক ঘাটে, অসমের বন্যা এটি সত্যি করেছে

ভূপেন গোস্বামী

গুয়াহাটি: বাঘ এবং ছাগল একসাথে, না না আসল কথাটি একটি ঘাটে বাঘ এবং ছাগল জল

খায়। জমিদার সন্ত্রাসের নামে এই প্রবাদটি প্রচলিত ছিল যেগুলিতে বলা হয়েছিল যে এ জাতীয় ও

এর মতো আধিপত্যের কারণে শিকারী ও শিকার একই ঘাটে জল খায় । তবে দেখুন প্রকৃতির

আজব কাকতালীয় ঘটনা। এবার এই দুই প্রাণী কে একসাথ রাত কাটাতে হয়েছে। 

প্রবাদটি এই ভিডিওতে সত্য দেখুন

তবে কোনও ঘাটে তাদের এক সাথে জল খেতে দেখা যায়নি তবে বাঘ এবং ছাগল একসাথে

ছাগলের ঘেরায় একসাথে অবস্থান করেছিল এবং বাঘও এই সময়ে ছাগলগুলিকে আক্রমণ

করেনি। গ্রামের লোকেরা রাতের বেলা ছাগলের চিত্কার শুনে বুঝতে পেরেছিল যে কিছু

গোলমাল আছে। তবে তারা অনুমান করতে পারেনি যে ছাগলদের বিরক্ত করা ও চিৎকার

করার কারণটি আসলে বাঘ। এই ঘটনা আবারও অসমের বন্যার মারাত্মক প্রকোপে দেখা যায়।

বাঘ এবং ছাগল সারা রাত একসাথে থাকে

বনে বন্যার জল বাড়তে থাকার দরুন বাঘ টিকে জঙ্গল ছেড়ে পালাতে হয়। এই সময়ে অসমের

কাজিরঙ্গা রিজার্ভের অধিকাংশ এলাকা জলে ডুবে আছে। সেখানে আগে থেকে তৈরি করা

কৃত্রিম পাহাড়ের এলাকায় গুলিতে অনেক প্রাণী আটকে আছে। বাকি সব এলাকা ক্রমাগত ভাবে

ডূবতে থাকায় বাঘটিকে প্রাণ বাঁচানোর দায়ে গ্রামের দিয়ে চলে আসতে হয়। এই এলাকায়

এখনএ বন্যার জল নেই। তবে ক্রমাগত বৃষ্টি থেকে বাঁচার জন্য বাঘ গোপনে গ্রামের ভিতরে

চলে আসার পরে বৃষ্টি থেকে বাঁচতে ছাগলে খোঁয়াড়ে আশ্রয় নেয়। এলাকাটি নিরাপদ মনে করে

বন্য প্রাণী ছাগলদের খোঁয়াড়ে ঢোকার পরেই ছাগলদের চেঁচামেচি শুরু হয়। গ্রামের লোকজন

রাতের অন্ধকারে আওয়াজ শুনে বুঝতে পেরেছিলো যে কিছু গোলমাল আছে। তাই পরের দিন

সকাল বেলায় তারা খুব সাবধানে ছাগলদের খোঁয়াড়ের দিকে নজর দেয়। তখন বোঝা যায় যে

ছাগলদের ছটফট করার আসল কারণ বাঘ। দুর থেকে দেখতে পেয়ে লোকেরা তাদের নিজেদের

মোবাইলে এই ঘটনার ফোটো তুলেছিলো। তবে তারা বুদ্ধিমানী করে ছাগলের খোঁয়াড়ের কাছে

যায় নি। বাঘটিকে আলাদা ছেড়ে এবং বিরক্ত না করার ফলে লোকেদের চোখের আড়াল বাঘ

এবং ছাগল সবাই ঠিক থাকার পরে বাঘ কোন এক সময়ে চুপচাপ সেখান থেকে বেরিয়ে চলে

গেছে। যাবার সময় সে ছাগলদের কোন ক্ষতি করেনি।


 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
More from HomeMore posts in Home »
More from তাজা খবরMore posts in তাজা খবর »
More from পরিবেশMore posts in পরিবেশ »
More from ভিডিওMore posts in ভিডিও »

One Comment

Leave a Reply

Mission News Theme by Compete Themes.
error: Content is protected !!