Press "Enter" to skip to content

শনির বলয়ের দুর্দান্ত ছবি দেখে বিজ্ঞানিরাও মুগ্ধ

  • হাবল টেলিস্কোপ এই বিরল ফোটো তুলতে পেরেছে
  • বলয় গুলি কেন, সেই প্রশ্নের সমাধান হয়নি
  • সাথের ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে পাঁচটা চাঁদ
প্রতিনিধি

নয়াদিল্লি: শনির বলয়ের দুর্দান্ত ছবি এবার দেখা গেছে।

হাব্বল টেলিস্কোপটি তার ক্যামেরায় দৃশ্যটি ধারণ করেছিল। নাসা এখন তা প্রকাশ্যে প্রকাশ করেছে।

এতে, মূল শনি গ্রহটি শনির বলয়ের মাঝে বিভিন্ন রঙে ধরা পড়ে।

হাব্বল টেলিস্কোপ এই পুরো দৃশ্যের ভিডিও তৈরি করেছে।

এই ভিডিওটি নাসাও প্রকাশ করেছে। যা দেখতে সুন্দর।

এখানে দেথুন নাসার ভিডিও যাতে সব কটা চাঁদ দেখা যাচ্ছে

বিজ্ঞানীদের মতে এটি শনির বলয়ের সবচেয়ে স্পষ্ট এবং সুন্দর ছবি।

হাব্বল টেলিস্কোপ ইতিমধ্যে অত্যন্ত পরিষ্কার ফটো ক্যাপচার সরঞ্জামগুলিতে সজ্জিত।

তবে এই দৃশ্যটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছে।

ফটোগ্রাফ এবং ভিডিও প্রকাশ করে, নাসা নিজে এগুলিকে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সুন্দর দৃশ্য হিসাবে বিবেচনা করেছে।

এই ছবির বৈজ্ঞানিক বৈশিষ্ট্যটি হ’ল এতে শনির বলয়ের চিত্রটি এতটাই স্পষ্ট যে এতে উপস্থিত তুষার এবং ধূলিকণা স্পষ্টভাবে দৃশ্যমান।

জ্যোতির্বিজ্ঞানীরাও বিশ্বাস করেন যে এই জাতীয় একটি পরিষ্কার ছবি শনি বোঝা সহজ করে তুলবে।

শনির বলয়ের ব্যাপারে নতূন কিছূ এখনও জানা যায়নি

প্রকৃতপক্ষে, শনির চারপাশে কেন এমন রিং রয়েছে এবং কীভাবে সেগুলি গঠন করা হয়েছে তা এই সত্যটি সমাধান করা যায় নি।

শনি গ্রহের বলয় গুলি মূল গ্রহের চারপাশে ঘোরে।

এই কারণে সময়ে সময়ে এগুলির পরিবর্তনগুলিও দেখা যায়।

যাইহোক, এই ফটোগ্রাফগুলির ভিত্তিতে বিজ্ঞানীরা এই সিদ্ধান্তে পুনরায় প্রমাণ দিচ্ছেন যে এই বলয়গুলিতে প্রচণ্ড ঝড় ওঠে এবং সেখানকার পরিবেশটি বেশ উত্তাল।

বলয় নিয়ে গবেষণা চলার পরেও তাদের বয়স কত এবং কী জ্যোতির্বিজ্ঞানের কারণে সেগুলি রচনা করা হয়েছিল তা এখনও ঠিক হয়নি।

বিজ্ঞানীদের মতে, যে কোনও সময় এখানে ছোট ছোট টর্নেডো উত্থিত হয়।

এই পরিস্থিতিটি গুলি অনেকটা ওভেনে পপ কর্ন ফোটার মতন।

মুহুর্তের ভিতরে ঘূর্ণঝড় ওঠে আর পরের মুহুর্তে শেষ হয়ে যায়।

এগুলি যত দ্রুত গঠিত হয় তত দ্রুত তারা অদৃশ্য হয়ে যায়।

এই ঘূর্ণিঝড়ের সময় অনেক সময় এই রিংগুলির রঙও বদলে যায়।

এই সময়কালে, এটি দেখা গেছে যে ছয় বর্ণের মেঘের একটি গুচ্ছ সর্বদা শনির উত্তর মেরুতে উপস্থিত থাকে।

মেঘের এই গুচ্ছটি 1981 সালে প্রথমবারের মতো লক্ষ্য করা গেছে।

তার পর থেকে প্রতিবার এই ষড়ভুজ আকারে রয়ে গেছে।

পাঁচটি চাঁদের পরিক্রমা পরিষ্কার ভাবে দেখা গেছে

এই ক্রমটিতে শনির পাঁচটি চাঁদ সম্পর্কিত ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে।

জানা যায় যে শনির পাঁচটি চাঁদ রয়েছে, যার নাম যথাক্রমে তিথিয়া, জানুস, মিমাস, এনসেলাড এবং রেহা।

এই সমস্ত চাঁদ বিভিন্ন অক্ষের উপর ঘুরছে।

এর ভিতরে যেটা শনির বেশি কাছে, সেটা বেশি দ্রুত গতিতে ঘোরপাক খাচ্ছে।

বিজ্ঞানীদের একটি দল নিয়মিত শনি পর্যবেক্ষণ করে।

একই দল হাব্বালের ক্যামেরায় এই দৃশ্যগুলি প্রথমবারের মতো দেখেছিল। য

দিও হাবল টেলিস্কোপ দীর্ঘদিন ধরে এটি করে চলেছে তবে এই প্রথম এই প্রথম এমন পরিষ্কার এবং সুন্দর ছবি দেখা গেছে।

যাইহোক, এটি বিশ্বাস করা হয় যে কোনও কারণে মহাকাশে ধুলাবালি পরিষ্কার হওয়ার কারণে টেলিস্কোপে এই দৃশ্যটি এত স্পষ্টভাবে দেখা গেছে।

এই জ্যোতির্বিজ্ঞানের দূরবীনটি বিজ্ঞানীদের তাদের কাজের সময় মহাকাশের অনেক অজানা রহস্যের সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

4 Comments

Leave a Reply

Mission News Theme by Compete Themes.
error: Content is protected !!