পশ্চিমবঙ্গে মনোনয়নপত্র জমা দেযাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে বিজেপি

0 50
কলকাতা (এজেন্সী) ঃ পশ্চিমবঙ্গে আসন্ন পঞ্চাযে নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেযাকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন জায়গায় শাসকদল তৃনমূল ও বিরোধী বিজেপি’র মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় রাজনৈতিক অঙ্গন উত্তপ্ত হযে উঠেছে| বুধবার রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের দাবিতে তারা সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানাবেন|
তিনি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েছের মধ্য দিযে নির্বাচন করতে হবে বলে দাবি জানিয়েছেন|
পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম, বাঁকুড়া, হুগলি, মুর্শিদাবাদ ও মালদহ জেলাসহ রাজ্যের বিভিন্নস্থানে মনোনয়নকে ঘিরে তৃণমূলের সঙ্গে বিরোধীদের তীব্র সংঘাত সৃষ্টি হয়েছে| বিরোধীদের অভিযোগ, মনোনয়নপত্র জমা দিতে গেলে তৃনমূল বাধা দিচ্ছে এবং তাদেরকে মারধর করছে| পুলিশ এ ব্যাপারে য়থায়থ ভূমিকা পালন করছে না বলে অভিযোগ| তৃনমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, রাজ্যের উন্নয়ন ব্যাহত করতে বিরোধীরা একজোট হয়েছে| রাজ্যবাসী ভোটে তার মোক্ষম জবাব দেবে|শান্তিপূর্ণভাবেই মনোনয়নপত্র জমা দেওযার কাজ চলছে| সংঘর্ষ নিযে কোনও মন্তব্য না করে এসব নির্বাচন কমিশনের দেখার বিষয় বলে তিনি মন্তব্য করেন|

সংঘর্ষ নিয়ে গভর্নরের সাথে দেখা করলো বিজেপি

মঙ্গলবার বিজেপি প্রতিনিধিদল পশ্চিমবঙ্গের গভর্নরের সঙ্গে দেখা করে তাদের অভিযোগের কথা জানিয়েছেন| গভর্নর কেশরিনাথ ত্রিপাঠি বুধবার রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে ডেকে পাঠিযে ওই ইশ্যুতে বিস্তারিত আলোচনা করেন|
এদিকে, গভর্নর নির্বাচন কমিশনারকে ডেকে পাঠাচ্ছেন এমন খবর আগেভাগে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের মুখ থেকে ব্যক্ত হওযায় গভর্নরের নিরপেক্ষতা নিযে প্রশ্ন তুলেছেন রাজ্যের মন্ত্রী ও তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়| এরফলে গভর্নরকে এ রাজ্যের মানুষ আর নিরপেক্ষ মনে করে না বলে মন্তব্য করেছেন পার্থ বাবু| তার প্রশ্ন গভর্নর কাকে ডাকবেন, সেটা দিলীপবাবুরা আগেভাগে জেনে যাচ্ছেন কী করে? ওই ঘটনাকে ‘অনৈতিক কাজ’ বলে অভিহিত করেছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়|
রাজ্যের উত্তর বঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ আজ বলেন, মানুষ উন্নয়ন চায়| আমরা বিগত ৭ বছরের মধ্যে মানুষের উন্নয়নের জন্য একশ’ শতাংশ কাজ করেছি| কোথাও কোনো সন্ত্রাস নেই| বিরোধীদের কোনো জনবল না থাকায় তারা অনেক জায়গাতেই প্রার্থী দিতে পারছেন না| এদিকে, মঙ্গলবার রাতে সন্দেশখালির মেটিযাখালিতে বিভিন্ন বাড়িতে ভাঙচুর, লুটপাট ও বোমাবাজি করে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা| এ সময় সিপিএম ও বিজেপি’র দফতরেও ভাঙচুর করা হয়|ওই ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার সকালে এলাকার আদিবাসী নারীরা ঝাঁটা হাতে নিযে সন্দেশখালিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান| বিরোধীদের মনোনয়ন জমা দেযা আটকাতেই তৃনমূল আশ্রিত দুর্বৃত্তরা ওই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ| কিন্তু শাসক দল তৃণমূলের পক্ষ থেকে ওই অভিযোগকে নাকচ করে দেযা হয়েছে|
পশ্চিমবঙ্গে আগামী মাসের ১, ৩ ও ৫ মে ভোট গ্রহণ হবে| ফল ঘোষণা হবে ৮ মে| ২ এপ্রিল নির্বাচনের বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছে| ৯ এপ্রিল পর্যেন্ত মনোনয়নপত্র জমা দেযা যাবে|

You might also like More from author

Comments

Loading...