Press "Enter" to skip to content

নীল নদের বয়স সম্ভবত ত্রিশ মিলিয়ন বছরেরও বেশি

  • নদের গভীরতা থেকে প্রাচীনতার প্রমাণ পাওয়া যায়
  • বিজ্ঞানীরা নদের গভীরতায় নতুন তথ্য পেয়েছেন
  • আগ্নেয়গিরির বিস্ফোরণ ঘটেছিল ইথিওপিয়ায়
  • নদীতে আগ্নেয়গিরির পাথর ছড়িয়ে আছে
প্রতিনিধি

নয়াদিল্লি: নীল নদের নাম আমরা জানি কেননা এটি পৃথিবীর অন্যতম বিখ্যাত নদী।এটি এর প্রস্থ এবং দৈর্ঘ্যের জন্য সারা বিশ্বে পরিচিত।

এ ছাড়াও অনেক জলজ জীবন এই নদীতে বাস করে।এই বিশেষ প্রজাতির কিছু বিশ্বজুড়ে বিলুপ্তির পথে রয়েছে বিজ্ঞানীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হচ্ছে।

এই ধারাবাহিকতায়, এই নদের গভীরতায় একটি চলমান গবেষণাকালে এ জাতীয় কিছু প্রমাণ প্রকাশিত হয়েছে যা থেকে এই নদের জন্মের ইতিহাস এবং প্রাচীন বলে অনুমানও করা হয়েছে।

প্রথমে এই নদীটি পৃথিবীর কাছাকাছি ছিল এটি পাঁচ মিলিয়ন বছর আগে গঠিত হয়েছিল বলে মনে করা হয়েছিল।

নদের জলের ভিতর থেকে এখন পাথরের জীবন গণনা করে বিশ্বাস করা হয় যে এই নদীটি প্রায় তিরিশ মিলিয়ন বছর ধরে চলেছে। তাই তার বয়স হয়তো এর বেশিও হতে পারে।

এটি সম্পর্কে তথ্য একটি নতুন গবেষণামূলক প্রবন্ধে লেখা হয়ে গেছে। এই প্রবন্ধটি নেচার জিওসায়েন্স জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

এটি নদের প্রতিটি বৈজ্ঞানিক দিক উল্লেখ করে নদের ইতিহাস বর্ণনা করেছে।

তথ্যের ভিত্তিতে গবেষকরা এই সিদ্ধান্তে এসেছেন যে এই নদীটি আসলে প্রত্যাশার চেয়ে অনেক বেশি প্রাচীন।

নদের তলদেশে পাওয়া পাথরগুলি আসলে পৃথিবীর লাভা অংশ রয়েছে।

বিজ্ঞানীরা বিশ্বাস করেন যে পৃথিবীতে অশান্তি এবং ভয়াবহ ঘটনাগুলি আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের কারণে এই পাথরগুলি পৃথিবীর গর্ভ থেকে বেরিয়ে এসেছিল।

তরল অবস্থায় ঠান্ডা হওয়ার পরে তারা পাথরের মতো পাথর হয়ে গেল।

তাদের উপর নদের জল প্রবাহিত হয় দাগ দেখা গেছে। এই ভিত্তিতে নদের ইতিহাস আগের অনুমানের চেয়ে পুরনো।

নীল নদের গভীরতায় পাওয়া পাথরের প্রমাণ পাওয়া যায়

এটা বিশ্বাস করা হয় যে পৃথিবীর অভ্যন্তরে থাকা এই নদের গভীরতায় পাথর রয়েছে। তরল হ’ল লাভার হিমায়িত অংশ।

তাদের উপরে নদের জলের প্রবাহের লক্ষণ রয়েছে। একই এ কারণে এটি বোঝা যায় যে এই নদী একই ভ্রমণে এই পাথরগুলির মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।

তার চিহ্ন রেখে গেছে। টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা বিজ্ঞানীরা সেখানে নমুনা সংগ্রহের পরে গভীর বিশ্লেষণ করেছেন।

এর অধীনে নদী এবং আশেপাশের অঞ্চলগুলির টেক্সচারও রয়েছে তথ্য নেওয়া হয়।

বিজ্ঞানীরা এই সিদ্ধান্তে এসেছেন যে ইথিওপিয়া অঞ্চলে পৃথিবী গভীরতা থেকে, এই জাতের একাধিক পাথর উপরের দিকে চলে এসেছে।

দক্ষিণ অংশ থেকে প্রস্থান করার পরে তারা উত্তর দিকে অগ্রসর হতে থাকে।

এটা প্রবাহটিও নীল নদের তীরে চলে গেছে। এ কারণেই নদের তলদেশে পাথর থাকার অর্থ সেই নদীও তখন উপস্থিত ছিল।

পাথরগুলি জলের চিহ্ন থেকে রয়েছে বলে বিশ্বাস করা হচ্ছে যে নদের প্রকৃত প্রবাহ তিরিশ মিলিয়ন বছর পূর্বে।

পৃথিবীর এই অংশের গভীরতা এবং গভীরতার কথা বলা হয়েছে যে পৃথিবীর বেশিরভাগ অংশ অভ্যন্তরীণ প্রান্তের এই বাইরের অংশটিকে ম্যান্টেল বলা হয়।

এটি একপাশ থেকে অন্যদিকে অবিচ্ছিন্নভাবে চলতে থাকে

চলতে থাকে নদের বাইরে আবিষ্কৃত পাথরগুলি নদের জলের সংস্পর্শে রয়েছে।

ইথিওপিয়ান উচ্চভূমি এই অঞ্চলগুলিতে আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের পর থেকে অবশ্যই এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল।

একই ভিত্তিতে পাথর বা লাভার প্রবাহ সেখান থেকে শুরু হয়ে নদের তলায় পৌঁছেছিল।

আগ্নেয়গিরির বিস্ফোরণটি ইথিওপিয়া থেকে নদী বদ্বীপে প্রবাহিত হয়

নদের গভীরতায় এখন এমন পাথর প্রমাণ করছে যে ত্রিশটি প্রকৃতপক্ষে মিলিয়ন বছর আগে এই নদের অস্তিত্ব ছিল।

যার অধীনে এই পাথরগুলি সমাধিস্থ করা হয়। নীল নদের নদের পাড়ের ডেল্টা অঞ্চলে এ জাতীয় পাথরের প্রচুর সন্ধান পাওয়া গেছে।

এই পুরো প্রক্রিয়াটি বুঝতে, বিজ্ঞানীরা এর জন্য কম্পিউটার মডেলগুলিও ব্যবহার করেছিলেন।

তার  ভিত্তিতে এটি বিশ্বাস করা হয় যে ইথিওপিয়ার এই মালভূমি অঞ্চল একই আগ্নেয়গিরির বিস্ফোরণের ফলাফলও।

যার মধ্যে মাটির ভিতর থেকে গরম লাভা প্রস্থানের পাশাপাশি এই অংশটিও উপরের দিকে উঠেছিল।

পরবর্তীতে এটি ধীরে ধীরে মালভূমি অঞ্চলে রূপান্তরিত হয়।

Spread the love
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
More from ইতিহাসMore posts in ইতিহাস »
More from তাজা খবরMore posts in তাজা খবর »
More from পরিবেশMore posts in পরিবেশ »
More from প্রকৌশলMore posts in প্রকৌশল »
More from বিজ্ঞানMore posts in বিজ্ঞান »
More from বিশ্বMore posts in বিশ্ব »
More from শিক্ষাMore posts in শিক্ষা »

7 Comments

Leave a Reply

Mission News Theme by Compete Themes.
error: Content is protected !!