Press "Enter" to skip to content

ধারালো অস্ত্র দিয়ে চোখ খুবলে জামাইকে খুনের অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে

মালদাঃ ধারালো অস্ত্র দিয়ে চোখ খুবলে জামাইকে খুন করার অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির

বিরুদ্ধে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতর নাম, আনন্দ প্রামানিক(‌৪২)‌। বাড়ি মালদা থানার

মঙ্গলবাড়ি এলাকায়। তিনি মুর্শিদাবাদের ফরাক্কায় একটি আলমারি কারখানায় কাজ করতেন।

ফরাক্কার তিলডাঙ্গা কেশবপুরে তাঁর শ্বশুরবাড়ি। মৃত্যুর পরিবারের লোকেদের অভিযোগ,

শ্বশুরবাড়িতে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যান তিনি। সেখানেই তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে

কোপানো হয় বলে অভিযোগ। খুবলে দেওয়া হয় তার চোখ।শনিবার সন্ধ্যায় তাঁকে

আশঙ্কাজনক অবস্থায় মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসকেরা তাঁকে

মৃত বলে ঘোষণা করেন। তাঁর দু’‌চোখ খুবলে তোলা হয়েছে বলে অভিযোগ। শরীরের বিভিন্ন

জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মৃতর বউদি গীতা প্রামানিক এদিন খবর পেয়ে ছুটে যান

মালদা মেডিকেলে।

ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যার অভিযোগ বাড়ির লোকেদের

তিনি বলেন, নৃশংসভাবে খুন করা হয়েছে আমার দেওয়রকে। শ্বশুরবাড়ির লোকেরাই খুন

করেছে। ওদের কথার মধ্যে অসঙ্গতি রয়েছে। কখনও বলছে রেলে কাটা পড়ে মৃত্যু, কখনও

বলছে ফাঁসী দিয়ে মৃত্যু। শ্বশুরবাড়ির লোকেদের কথা বার্তা শুনেই বাড়ির লোকেদের সন্দের

হয়েছিলো। তার পরে মৃতদেহ ভাল করে দেখার পরে তারা এই ব্যাপারে নিশ্চিত হবার পরে

পুলিসের কাছে এই হত্যার অভিযোগ করে। তাদের মতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা চালাবার

প্রমাণ তো মৃতদেহ দেখেই বোঝা যাচ্ছে। তাছাড়া কোন লোক মারা গেলে কি তার দুই চোখ

উপড়ে ফেলা যায়। এই অবস্থ্যা আর শ্বশুরবাড়ির লোকেদের কথা থেকেই বোঝা যাচ্ছে যে

তারাই এই হত্যার সাথে জড়িত। কিন্তু আমি নিশ্চিত শ্বশুরবাড়ির লোকেরাই খুন করেছে।

ওদের সঙ্গে তেমন বনিবনা ছিল না দেওয়রের।পুলিশ মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।

তবে কি কারনে ওই ব্যক্তিকে খুন করা হয়েছে তা তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। পুলিস তদন্তে

হত্যার আসল কি হতে পারে সেই সম্পর্ক অফিসাররা কোন নিশ্চিত সিদ্ধান্তে আসতে পারেন নি।


 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

One Comment

Leave a Reply

Mission News Theme by Compete Themes.
error: Content is protected !!