আলিপুরদুয়ারঃ জঙ্গল থেকে বেরিয়ে গ্রামের ক্ষেতে শাবকের জন্ম দেবার ঘটনা একটি

নজিরবিহীন ঘটনা। এই নজিরবিহীন ঘটনা ঘটলো জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের বাইরে। বন

থেকে বেরিয়ে গ্রামে গিয়ে শাবকের জন্ম দিল এক বিবাগী গন্ডার। সেখানে অসুস্থ হয়ে যাবার

পরে তার চিকিত্সার ব্যাবস্থা করা হয়েছিলো। তার পরেও শেষ রক্ষা হয় নি। মা গন্ডার মারা

গেছে। বুধবার সকালে এই ঘটনায় জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান লাগোয়া সিধাবাড়ি গ্রামে ব্যাপক

চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।জানা গিয়েছে জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের শিশামারি জঙ্গল লাগোয়া গ্রাম

সিধাবাড়ি। বুধবার সকাল সাতটা নাগাদ ওই গ্রামে নদীর বাঁধের কাছেই একটি শাবকের জন্ম

দেয় মা গন্ডার। বাচ্চা জন্ম দেওয়ার পরেই মা অসুস্থ হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে তড়িঘড়ি

জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান থেকে বনদপ্তরের বিশেষজ্ঞদের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। প্রথমে

তারা গন্ডারের শাবকটিকে উদ্ধার করে নিয়ে যায় বন দফতর।এরপর অসুস্থ অবস্থায় পড়ে

থাকা মা গণ্ডারকে ঘুমপাড়ানি গুলি করে কাবু করা হয়। তারপর ঘটনাস্থলে শুরু হয় মা

গন্ডারের চিকিৎসা। কিন্তু আশপাশে গ্রামবাসীদের ভীড়ে চিকিৎসা ব্যাহত হয় বলে জানা গেছে।

তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে পৌঁছায় বনদপ্তর। ক্রেনে করে বিশাল আকার গন্ডার কে তুলে নিয়ে যাওয়া

হয় জাতীয় উদ্যানের ভেতরে। আপাতত শাবক ও মা দুজনেই সুস্থ আছে বলে জানিয়েছিলো

বনদফতর। তাদের চিকিৎসা চলছে। তবে কি কারণে এইরকম ভাবে মা গন্ডার জঙ্গল ছেড়ে

লোকালয়ে গিয়ে শাবকের জন্ম দিল তা খতিয়ে দেখছে বনদপ্তর।

জঙ্গল থেকে বেরিয়ে শিশুর জন্ম দেবার ঘটনা আগে ঘটে নি

জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান সূত্রে জানা গেছে গন্ডারটিকে প্রসব কালীন অবস্থায় নজর রাখছিল

বনদপ্তর। কিন্তু বনদপ্তরের নজর এড়িয়ে বুধবার সকালে জঙ্গল ছেড়ে লোকালয়ে চলে যায় এই

গন্ডারটি। সেখানে স্থানীয় বিদুর বিশ্বাস নামে এক ব্যক্তির জমিতে মাগন্ডারটি শাবকের জন্ম

দেয়। শাবকটিকে তড়িঘড়ি উদ্ধার করতে পারলেও বিশাল আকার মা গন্ডারকে উদ্ধার করতে

বেগ পায় বনদফতর। মা গণ্ডারটিকে ঘুমপাড়ানি গুলি করে কাবু করে উদ্ধার করা হয়। দের

রাতে বন বিভাগের লোকেরা জানিয়েছেন যে মা গণ্ডার টি মারা গেছে। তবে শিশু এখনও ঠিক

আছে এবং তার দেখা শোনা ভাল ভাবেই হচ্ছে। তবে মা গণ্ডার কেন জঙ্গল থেকে বেরিয়ে

এসেছে, সেই ব্যাপারে এখনও কোন সিদ্ধান্তে আসেন নি বিশেষজ্ঞরা


 

Spread the love

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.