Press "Enter" to skip to content

বানরদের এখন লকডাউনে পুলিশ নিজে খাবার দিয়ে আসছে

  • সবকিছু বন্ধ থাকায় খাবারের সমস্যায় পড়েছে

  • ভয় কেটে গেছে এসে হাত থেকে নিয়ে যাচ্ছে

  • লাইন করে একে একে এসে নিজের ভাগ নিচ্ছে

দীপক নওরঙ্গি

ভাগলপুর: বানরদের এখন সময় ভাল যাচ্ছে না। তারা আসলে বুঝে উঠতে পারছে না যে তাদের

খাবার জোগাড় এমনি ভাবে বন্দ হয়ে গেছে কেন। দেশ জুড়ে লক ডাউন চলছে। তাই ভাগলপুরেও

একই অবস্থ্যা। সমস্ত দোকান পাট বন্দ। সব কিছূ বন্ধ হবার সাথে সাথে রাস্তার ধারে যে লোকেরা

খাবার খেতো সেটাই প্রায় নেই। ফলে বানরদের খাবার জোটার সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে। তারা এখনও

হয়তো বুঝে উঠতে পারে নি যে এই ভাবে তাদের খাবারের ব্যাবস্থা শেষ হয়ে গেছে কেন। বনে থাকলে

হয়তো তাদের খাবারের অন্য ব্যাবস্থা থাকতো। লোকালয়ে মানে ভাগলপুর এবং আশে পাশে থাকা

বানরদের সেই সমস্যা। দোকান খোলা থাকলে হয়তো য়ে কোন দোকান থেকে ফল বা অন্য কিছূ তুলে

নেওয়া যেত। এখন সেই উপায় নেই। তাই এই বানরদের ভোজন দেবার কাজে লেগেছেন

ভাগলপুরের কিছূ পুলিস অফিসার। এই লক ডাউনে বানরদেরও অনাহার থেকে বাঁচানোর জন্য এই

চেষ্টা। ভাগলপুর পুলিশ এই বানরদের ত্রাণ হিসাবে এসেছে।

ভিডিওতে দেখুন কি ভাবে তারা খাবার গ্রহণ করছে

ভাগলপুরেও এরকমই কিছু দেখা গেল। সাধারণ মানুষ এবং রাস্তায় ঘোরাঘুরি করা প্রাণীদের যত্ন

নেয় অনেকে বিশেষত মানুষের জন্য, বিভিন্ন উপায়ে খাদ্য সরবরাহের মাধ্যম কেবল ভাগলপুরেই

নয়, সারা দেশে সরবরাহ করা হয়েছে। তবে বন্য প্রাণীদের জন্য এটি একটি অদ্ভুত এবং ভয়াবহ

পরিস্থিতি। ভাগলপুর শহর ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলগুলিতে ঘুরে বেড়ানো এই বানরগুলির এই দিনগুলিতে

ক্ষুধার্ততায় ভুগছে। ভাগলপুর পুলিশ তাদের সমস্যা কম করতে এগিয়ে এসেছে। এটা দেখে ভাল লাগে

যে পুলিশ সদস্যরা এই বানরগুলিকেও খাবার সরবরাহের জন্য পুরো মনোযোগ দিচ্ছে। শুরুর

দিনগুলি হয়তো অন্যরকম কিছু ছিলো। তবে এখন নিয়মিত খাবার সরবরাহকারীরা বানরদের

কাছে পরিচিত।

বানরদের এখন খাবার নেওয়ার ভয় নেই

যে কারণে তারা খাবার দেওয়ার সময় কোনও তাড়াহুড়ো করে না। তারা আরও জানে যে তাদের

প্রত্যেকের জন্য কিছু আছে। সমস্ত বানর একের পর এক সারিবদ্ধভাবে তাদের খাদ্য গ্রহণ করেছিল।

খাবার গ্রহণের পরে, তিনি অন্যান্য বানরদের জন্য জায়গাটিও ছেড়ে দিয়েছিলেন। কোনও পুলিশ

অফিসারের হাত থেকে বিনা দ্বিধায় খাবার গ্রহণ করা বানরের সংখ্যাও লক্ষণীয়


 

Spread the love
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
More from কোরোনাMore posts in কোরোনা »
More from খাদ্যMore posts in খাদ্য »
More from তাজা খবরMore posts in তাজা খবর »

Be First to Comment

Leave a Reply

Mission News Theme by Compete Themes.
error: Content is protected !!