Press "Enter" to skip to content

ক্রমবর্ধমান হিংসায় আফগানিস্তানে উভয় পক্ষের বহু লোক মারা গেছে

হেরাত: ক্রমবর্ধমান হিংসায় আফগানিস্তানে আবারও উদ্বেগের পরিস্থিতি রয়েছে।

আফগানিস্তানে হিংসায় কি হচ্ছে তার প্রমাণ হল সেখানে সংঘর্ষ ও মৃত্যুর চিত্র। আগে বোঝা

গিয়েছিল যে শান্তি আলোচনার পরে সেখানে অবস্থার উন্নতি হবে। সেখানে কয়েক দিন শান্তির

পর আবারও দ্বন্দ্ব বাড়তে শুরু করেছে। আফগানিস্তানের পশ্চিম হেরত প্রদেশের কুশক রুবাত

সাঙ্গি জেলায় তালেবান জঙ্গিদের হামলায় সাতজন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছেন।

জেলাশাসক লাল মোহাম্মদ উমরজাই শনিবার বলেছেন, তালেবান জঙ্গিরা শুক্রবার গভীর

রাতে খাজা নূর এলাকায় সাধারণ বেসামরিক লোকদের উপর হামলা চালিয়ে সাতজনকে হত্যা

করে। হামলাকারীরা হামলার পরে পালিয়ে যায়। এই হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে হেরাতের

প্রাদেশিক সরকারের মুখপাত্র জিলানী ফরহাদ বলেছেন যে এই হামলায় নিহতদের মধ্যে একজন

শিক্ষকও ছিলেন। তালেবানরা এই হামলার দায় স্বীকার করেনি বা দাবিও করেনি।

তালেবানদের অনুরোধে আফগান সরকারের প্রতিনিধিরা শান্তি আলোচনায় না যাওয়ার পরে

সরকার তার প্রতিনিধি পাঠিয়েছিল। এই সংলাপে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পাশাপাশি

কারাবন্দি জঙ্গি জঙ্গিদের মুক্তির বিষয়টিও আলোচনা হয়েছিল হয়েছে।

ক্রমবর্ধমান হিংসায় সেনা সতর্ক আছে

আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ বালখের চামতল জেলায় তালিবান জঙ্গি ঘাঁটিতে সুরক্ষা

বাহিনীর বিমান হামলায় আট জঙ্গি নিহত হয়েছেন। উত্তরাঞ্চলে সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মোহাম্মদ

হানিফ রেজাই শনিবার বলেছিলেন যে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে শুক্রবার জেলার চারসাই

আলবার্জ এলাকায় তালেবানদের আস্তানাগুলিতে নিরাপত্তা বাহিনী বিমান হামলা চালায়। এই

পদক্ষেপে আট জঙ্গি নিহত এবং পাঁচ জন আহত হয়েছেন। তালেবানরা এখনও পর্যন্ত এ বিষয়ে

কোন মন্তব্য করেনি। এটা স্পষ্ট যে ক্রমবর্ধমান সহিংসতার ঘটনার কারণে সুরক্ষা বাহিনী

এখনও পুরোপুরি নজরদারি অবস্থায় রয়েছে। এর আগে, যুদ্ধবিরতি ঘোষণার পরপরই

তালেবান হামলায় নিরাপত্তা বাহিনী প্রচুর ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এ কারণে আফগান সৈন্যরা আর এই

ভুলটি করতে চায় না


 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
More from কূটনীতিMore posts in কূটনীতি »
More from তাজা খবরMore posts in তাজা খবর »
More from প্রতিরক্ষাMore posts in প্রতিরক্ষা »
More from সন্ত্রাসবাদMore posts in সন্ত্রাসবাদ »

Be First to Comment

Leave a Reply

Mission News Theme by Compete Themes.
error: Content is protected !!