My title page contents Press "Enter" to skip to content

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ কোচবিহারে




কোচবিহারঃ  প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে যে পরিমাণ কাটমানি নেওয়া হয়েছে,




তা অবিলম্বে ফেরত দেওয়া, মেধা তালিকায় নাম থাকা সত্বেও কাটমানি দিতে না পারায়

যাদের প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ করা হয়নি, অবিলম্বে তাদের নিয়োগ করা,




প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি দেওয়ার নাম করে জনসাধারণের কাছ থেকে যে পরিমাণ অর্থ নেওয়া হয়েছে,

অবিলম্বে তা ফেরৎ সহ কোচবিহার জেলা প্রাথমিক সংসদের চেয়ারপার্সন

কল্যাণী পোদ্দারের পদত্যাগের দাবিতে ছাত্র যুবদের সোচ্চার মিছিল এবং

ডেপুটেশন কর্মসূচিকে ঘিরে মঙ্গলবার উত্তাল হয়ে উঠল কোচবিহার শহর।

সংশ্লিষ্ট দাবিগুলিকে সামনে রেখে  কোচবিহার জেলা প্রাথমিক সংসদের দপ্তর ঘেরাও

অভিযানের ডাক দেয় ভারতের ছাত্র ফেডারেশন এবং ভারতের গণতান্ত্রিক যুব ফেডারেশন।

তাদের এই ডাকে সাড়া দিয়ে দলে দলে ছাত্র যুবরা জমায়েৎ হতে শুরু করে

এস আই কোচবিহার জেলা সদর দপ্তরে।

সেখান থেকেই এক বিশাল মিছিল বের হয়ে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা পরিক্রমা করার পর

সমবেত হয় সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সামনে।

এখানে ফেটে পড়েন তাঁরা

প্রাথমিক অবস্থায় কোচবিহার জেলা প্রাথমিক সংসদের চেয়ারপার্সন কল্যাণী পোদ্দার

ছাত্রদের দাবি পত্র গ্রহণ করতে অস্বীকার করলেও ছাত্র যুব আন্দোলনের মেজাজ দেখে

তিনি কার্যত বাধ্য হয়েই এই দুই সংগঠনের নেতৃত্বদের সাথে কথা বলে

দাবি পত্র গ্রহণের জন্য রাজি হন।

এরপর এসএফআই কোচবিহার জেলা সম্পাদক প্রণয়, সভাপতি কৌশিক ঘোষ,

এসএফআইয়ের রাজ্য নেতা আতিক হাসান, ডি ওয়াই এফ আই কোচবিহার জেলা সম্পাদক শম্ভু চৌধুরী

দীর্ঘক্ষণ কথা বলেন এবং তাঁদের কাছ থেকে দাবি পত্র গ্রহণ করেন তিনি।

ছাত্রদলের এই উত্থাপিত দাবি পূরণে যথাযথ ব্যবস্থা নেবার আশ্বাস দেন চেয়ারপার্সন।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের দুর্নীতির অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও

ক্ষমতার অপব্যবহার করে  কার্যত স্বৈরাতান্ত্রিক পদ্ধতিতে কোচবিহার প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদ

পরিচালনা করেছেন এই প্রাথমিক  বিদ্যালয় সংসদের চেয়ারপার্সন

কল্যাণী পোদ্দার বলে অভিযোগ উঠছে বারবার।

অভিযোগ যে তিনি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছেন কোচবিহার জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদকে।

শিক্ষক নিয়োগ, প্রধান শিক্ষক নিয়োগ, বদলি, শিক্ষারত্ন, নির্মল বিদ্যালয়

সব ক্ষেত্রেই ব্যাপক দুর্নীতির সাথে যুক্ত এই চেয়ারপার্সন।

এই সমস্ত অভিযোগকে সামনে এনে ইতিমধ্যেই মাথাভাঙা শহরে

প্রাথমিক সংসদের এই চেয়ারপার্সনের বাড়ি সামনে বিক্ষোভ আন্দোলনে

শামিল হন প্রাথমিক শিক্ষকদের।

সম্প্রতি মাথাভাঙা মহকুমা শাসকের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে নাগরিক মঞ্চ নামের

একটি সংস্থার পক্ষ থেকে অভিযোগ করে জানানো হয়েছে যে

কল্যাণী পোদ্দার  ও  তাঁর স্বামী (মাথাভাঙা পৌরসভার ভাইস চেয়ারম্যান)  চন্দন দাস

মাথাভাঙ্গা, শিলিগুড়ি, মাটিগাড়া এলাকায় গত ছয় বছরে ১৬টি জমি কিনেছেন।

যার সম্মিলিত মূল্য প্রায় ১০ কোটি টাকা।

সেখানে ১৬ টি জায়গার নাম সহ জমির সমস্ত বিবরণ এবং মূল্য বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে।

ইতিমধ্যেই সংবাদপত্রে এই বিপুল পরিমাণ সম্পত্তি কেনার খবর ছাপা হয়েছে।

এই নিয়ে কোচবিহার জেলা জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

তবে কল্যাণী দেবী ও তাঁর স্বামী এত সম্পত্তি কেনার কথা অস্বীকার করেছেন।

পুরো বিষয়টি বিরোধীদের চক্রান্ত বলে দাবি করেছেন তাঁরা।

২০১১ সালে রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পর থেকেই

কোচবিহার জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদ চেয়ারপার্সন পদে রয়েছেন

পেশায় হাইস্কুলের শিক্ষিকা কল্যাণী দেবী।

প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক পদে চাকরি দেওয়া, শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বদলি সংক্রান্ত বিষয়ে

আর্থিক লেনদেন নিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে অনেক আগে থেকেই সরব হয়েছে সিপিআই(এম) সহ বিরোধী দলগুলি।



Spread the love
More from পশ্চিমবঙ্গMore posts in পশ্চিমবঙ্গ »
More from শিক্ষাMore posts in শিক্ষা »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.