• অনেক মেয়েদের চোট লেগেছে তবে ধর্ষণ হয়নি

  • মকর সংক্রান্তি মেলা দেখতে ফিরছিলেন ছয় জন মেয়ে

  • অভিযুক্তরা জোর করে নির্জন জায়গায় নিয়ে যায়

  • দুটি মেয়ে  সেখান থেকে পালাতে সক্ষম হয়েছিল

প্রতিবেদক

রাঁচি: খুঁটির কালামাটি এলাকায় চার নাবালিকাকে গণধর্ষণ করার

ঘটনাটি বৃহস্পতিবার প্রকাশ্যে এসেছে। বুধবার সন্ধ্যায় এই ঘটনা। এই 6

টি মেয়েই মকর সংক্রান্তিতে মেলা দেখে নিজেদের ফুদি গ্রামে তাদের

বাড়িতে ফিরে যাচ্ছিল। অভিযুক্তরা মেয়েদের ধরেছিল। এদিকে, দুটি মেয়ে

সেখান থেকে পালাতে সক্ষম হয়, এবং ৪ জন মেয়েকে অভিযুক্তরা ধরে

নিয়ে যায় এবং হাতুডামি গ্রামে নিয়ে যায়। সেখানে একটি বাড়িতে

অভিযুক্তরা মেয়েদের ধর্ষণ করে। ঘটনাটি খুঁটির জেলার হাতুডামি

গ্রামের। মেয়েদের বয়স 12 থেকে 15 বছরের মধ্যে এবং পঞ্চম- ষষ্ঠ

শ্রেণিতে তারা পড়াশোনা করে। ভুক্তভোগীরা জানিয়েছে যে মেলা দেখে

তারা ফিরে আসছিলো। পথে তিনটি বাইকে চড়ে ছয় জন ছেলে এসে তাদের

জোর করে নিয়ে যায়। এদের ভিতরে একজন ছেলে আবার মেয়েদের সাথে

পড়া করে। মেয়েদের সাথে কথা বলার পরে পুলিশ তাদের মেডিকল

এক্সামিনেশনের জন্য পাঠায়। বিষয়টি নিয়ে কালা মাটি পঞ্চায়েত ফুদির

গ্রামের প্রধান হারমানের বাড়িতে পুরো গ্রাম থেকে লোকজন জড়ো হয়েছে।

ঘটনাস্থলে পুলিশ তদন্ত করছে।

খুঁটির কালামাটি এলাকায় পুলিস পরিদর্শন 

পুলিশ জানিয়েছে, সব নাবালিক মেয়ের বক্তব্য রেকর্ড করা হয়েছে। তারা

সবাই খুব ভীত। এই মেয়েদের অনেকের মুখে চোটের আঁচড় আছে। তবে

পুলিসের হিসাবে মেয়েগুলি খুব জোর বেঁচে গেছে। তাদের ধর্ষণ করা হয়

নি। যে মেয়েদের কাছ থেকে এই লজ্জাজনক ঘটনাটি ঘটেছে, তাদের মধ্যে

সকলেই পঞ্চম থেকে আট বছরের শিক্ষার্থী। এঁরা সকলেই মেধাবী এবং

হকি খেলোয়াড়। পুলিশ অভিযুক্তের পরিচয় জানতে পেরে ছয়টি ছেলের

তল্লাশি চালাচ্ছে। কিছু মেয়ে অন্ধকারের কারণে তাদের সম্মান বাঁচাতে

সফল হয়েছিল।

ভিডিও তে দেখা যাক আসলে পুলিস কি বলছে

ঘটনাস্থল থেকে পালাতে সক্ষম হওয়া দুই মেয়ে এই ঘটনার কথা

ভুক্তভোগীর পরিবারকে জানিয়েছিল। এরপরে পরিবার ঘটনাস্থলে পৌঁছে

মেয়েদের উদ্ধার করে। এই বাড়িটিকে পুষ্কর মুন্ডা হিসাবে বর্ণনা করা

হচ্ছে। অভিযুক্তদের মধ্যে পুষ্কর মুন্ডার ছেলেও রয়েছে। পরিবার এই ঘটনা

সম্পর্কে প্রধানকে অবহিত করে। প্রধান পুলিশকে বিষয়টি জানিয়েছেন।

পুলিশ অভিযুক্তকে সনাক্ত করেছে। এখন আরও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
নাবালকসহ ৫ জন আসামী গ্রেপ্তার

খুঁটি থানা এলাকার এই অভিযোগে পুলিশ তদন্তে ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত

হয়নি। পুলিশি তদন্তে কেবল অপহরণ ও শ্লীলতাহানির বিষয়টি প্রকাশ

পেয়েছে। এই ঘটনার খবর পুলিশ কর্তৃক গ্রেপ্তার হওয়া এক নাবালিকসহ

পাঁচ জন জানিয়েছেন।

2018 সালে ধর্ষণের ঘটনাও ঘটেছিল

2018 সালে, খুঁটির কোচাং এলাকায় একটি নাটক ট্রুপের 5 জন মেয়েকে

গণধর্ষণ করা হয়েছিল। এতে সাত জনকে আসামি করা হয়েছিল।

অভিযুক্তদের কয়েকজন পাথরগাড়ির সমর্থকও ছিলেন। মেয়েরা

কোচাংয়ের স্টপম্যান মিডল স্কুলে স্ট্রিট নাটক উপস্থাপনা করছিলেন। 15

মিনিটের পরে, দুটি বাইকে চড়ে পাঁচজন লোক সেখানে পৌঁছেছিল। তিন

যুবক মেয়েদের গানপয়েন্টে গাড়ি থেকে নামিয়ে নিয়ে নির্যাতন করে।


 

Spread the love

One thought on “খুঁটির কালামাটি এলাকায় চার নাবালিকাকে ধর্ষণ কথা অস্বীকার করেছে পুলিস

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.