কর্নাটকের প্রাক্তন মন্ত্রী গ্রেফ্তার, ৬০০ কোটি টাকার দুর্নীতিতে জেল

janardan reddy

বেংগলুরুঃ কর্ণাটকের বেল্লারির ‘মাইনিং ব্যারন’ তথা কর্ণাটকের প্রাক্তন মন্ত্রী জনার্দন রেড্ডিকে

৬০০ কোটি টাকার দুর্নীতি ও ঘুষকাণ্ডের অভিযোগে গ্রেফতার করেছে সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্র্যাঞ্চ।

আজ সকালে বেঙ্গালুরুতে গ্রেফতার করা হয় তাঁকে।

দক্ষিণ ভারতের এই নামী শিল্পপতি বহুদিন ধরে গ্রেফতারি এড়াতে বিভিন্ন জায়গায় গা ঢাকা দিয়ে বেড়াচ্ছিলেন বলেও সূত্রের দাবি।

আদালতে তোলার পর তাঁকে আজই জেলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, ক্রাইম ব্রাঞ্চের তরফে জানানো হয়েছে যে, আর্থিক দুর্নীতি বিষয়ে জনার্দন রেড্ডির বিরুদ্ধে উপযুক্ত প্রমাণ থাকায় এই গ্রেফতারি।

ক্রাইম ব্রাঞ্চের আরও জানিয়েছে, যে পরিমাণ টাকা তছরুপের অভিযোগ রয়েছে,

তা উদ্ধার করে বিনিয়োগকারীদের ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

ধৃত জনার্ধন ও তাঁর শাগরেদ মেহফুজ খানকে বহুদিন থেকেই পুলিশ খুঁজছিল ।

উল্লেখ্য , ভুয়ো সংস্থার নামে টাকা তোলার অভিযোগের পাশাপাশি,

অবৈধ আর্থিক লেনদেনের সঙ্গেও নাম জড়িয়েছে কর্ণাটকের এই প্রাক্তন মন্ত্রীর।

এখানেই শেষ নয়,তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের জন্য যাতে বিপাকে পড়তে না হয়,

তার জন্য এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টোরেট অফিশিয়ালদের ঘুষ দেওয়ারও প্রস্তাব দেন জনার্দন , বলে অভিযোগ রয়েছে।

উল্লেখ্য,সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্রাঞ্চের নোটিস পেওয়ার পরই গতকাল বেঙ্গালুরুতে ব্রাঞ্চের দফতরে পৌঁছন জনার্দন ও তাঁর আইনজীবী।

তারপর সেখানে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

এর পরই আজ জনার্দনকে গ্রেফতারির সিদ্ধান্ত নেয় ক্রাইম ব্রাঞ্চ।

সারদাকাণ্ডের মতেই জনার্দনের সংস্থা অ্যাম্বিডেন্ট বিনিয়োগকারীদের থেকে টাকা নিয়ে

তার ৩০-৪০ শতাংশ প্রতিমাসে লাভের লোভ দেখায়। কিন্তু সেই টাকা ফেরত দিতে পারেনি সংস্থা।

এর পরই জনার্দনের সংস্থার বিরুদ্ধে আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ আসে।

Please follow and like us:

Author: Bangla R khabar

Loading...