• অনেক পদে অফিসারদের পদায়ন নেই

  • অতিরিক্ত চার্জে সদর দফতর চলছে

  • আরও অফিসার যেখানে প্রয়োজন নেই

রাঁচি: ঝাড়খণ্ড পুলিশে যেখানে বেশি কাজ হচ্ছে সেখানে পুলিশ আধিকারিকেরও ঘাটতি

রয়েছে। আর যেখানে কাজের অভাব রয়েছে সেখানে পুলিশ আধিকারিকদের আধিক্য রয়েছে।

রাজ্য পুলিশ সদর দফতরের রেল শাখায় ডিআইজি থেকে ডিজি পর্যন্ত কর্মকর্তাদের পোস্টিং

দেওয়া হয়েছে। ডিজি, এডিজি এবং আইজি এই তিনটি র্যাইঙ্কিংয়ে রেলওয়েতে অফিসার পোস্ট

করেছেন। বলা হচ্ছে ডিজি বা এডিজিতে এক র্যা ঙ্কের একজন মাত্র অফিসারকে এখানে রাখা

হয়েছে। একই সঙ্গে, ঝাড়খণ্ড পুলিশে সদর দফতরে এমন অনেক পদে পুলিশ আধিকারিকের

ঘাটতি রয়েছে, যেখানে প্রচুর কাজ চলছে। রাজ্য পুলিশ সদর দফতরে যে পদগুলিতে বেশি কাজ

রয়েছে সেগুলি শূন্য রয়েছে বা অতিরিক্ত দায়িত্বে চলছে। এর মধ্যে রয়েছে ঝাড়খন্ড জাগুয়ার

আইজি, ডিআইজি, ডিআইজি এসআইবি এর মতো গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট। শুধু তাই নয়, জ্যাপের

কমান্ড্যান্ট পদ এবং আইআরবির অতিরিক্ত চার্জ হিসাবে অনেক জেলার এসপিও পেয়েছেন।

পুলিশ সদর দফতরে অনেক গুরুত্বপূর্ণ পদ শূন্য রয়েছে। যেখানে এসসিআরবি, ডিআইজি পদ

দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে। এ ছাড়া সদর দফতরের আইজি প্রভিশন অরুণ কুমার সিং এবং

ডিআইজি মদন মোহন লাল গত বছর অবসর নিয়েছিলেন। তবে এই দুটি পদেই কোনও

অফিসিয়াল পোস্টিং করা হয়নি। একই সঙ্গে ডিআইজি সংগীতা কুমারীর মৃত্যুর পরে ডিআইজি

কর্মী পদও শূন্য রয়েছে। একইভাবে আইজি, সিআইডি রঞ্জিত প্রসাদের অবসর গ্রহণের পর,

ডিসেম্বর থেকে অর্গানাইজড ক্রাইম আইজি পদটি শূন্য রয়েছে। সিআইডির অন্য আইজির

পদটিও 31 জানুয়ারির পরে খালি হয়ে যায়।

ঝাড়খণ্ড পুলিশে অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের পদ পূরণ হয়নি

জেএসপিএল-তে (ঝাড়খণ্ড পুলিশ আবাসন কর্পোরেশন), পিআরকে নাইডুকে ডিজি পদে এবং

অনিল পালতাকে এডিজি কাম এমডি পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এই দুই কর্মকর্তা,

জেএসপিএল-তে পোস্ট হওয়া সত্ত্বেও পুলিশ সদর দফতরের কাজ দেখাশোনা করেন। পিআর-এর

নাইডু পুলিশ সদর দফতরে ডিজি, অনিল পলতা পুলিশ সদর দফতরে অতিরিক্ত ডিজি

প্রশিক্ষণের অতিরিক্ত দায়িত্বে ছিলেন। তবে দুজনের বেতন আগে থেকেই টাকার অভাবে ভোগা

জেএসপিএল দিয়ে দেয়।

Spread the love