Press "Enter" to skip to content

ভারতীয়-আমেরিকান সংসদ সদস্য কমলা হ্যারিস রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের থেকে সরে গেলেন

ওয়াশিংটন: ভারতীয়-আমেরিকান সংসদ সদস্য কমলা হ্যারিস ২০২০

সালে অনুষ্ঠিত মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচন থেকে তার নাম প্রত্যাহার করে

নিয়েছেন। হ্যারিস, 55, মঙ্গলবার তার প্রচার দলের সাথে কথা বলেছেন

এবং এই বিষয়ে টুইট করেছেন।

মিসেস হ্যারিস টুইটারে একটি বিবৃতি জারি করে বলেছিলেন, “আমি গভীর

সমর্থনে এবং সম্পূর্ণ কৃতজ্ঞতার সাথে আমার সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চাইতে

চাই, আমি এই বলেছি যে আমি আজ আমার নির্বাচনী প্রচার শেষ করছি।”

তবে আমি এটা স্পষ্ট করে বলতে চাই যে আমি জনগণের জন্য ন্যায়বিচার

এবং সবার জন্য ন্যায়বিচারের জন্য প্রতিদিন লড়াই করব, যার জন্য এই

প্রচারে আমি নেমেছিলাম।

ক্যালিফোর্নিয়ার শক্তিশালী ডেমোক্র্যাটিক পার্টির সাংসদ বলেছিলেন,”

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের প্রচার চালিয়ে যাবার মতন আমার কাছে আর্থিক

সংস্থান নেই, আমি কোনও বিলিয়নিয়ার নই। তাই আমি আমার প্রচারের

জন্য অর্থ ব্যয় করতে পারছি না। ”

যখন মিসেস হ্যারিস ২০২০ সালের নভেম্বরে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন হওয়ার জন্য

তার প্রার্থিতা ঘোষণা করেছিলেন, তখন তিনি প্রচার শুরু করার আগেই এই

শীর্ষ পদে ছিলেন। দৃঢ় প্রতিযোগী হিসাবে দেখা হয়েছিল। সমর্থকদের ভিড়ের

মধ্যে তিনি এই বছর জানুয়ারিতে নিজের শহর আকল্যান্ড (ক্যালিফোর্নিয়া)

থেকে প্রচার প্রচার শুরু করেছিলেন। ডেমোক্র্যাটিক সাংসদ কমলা হ্যারিস হলেন

রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্পষ্টবাদী সমালোচক।

ক্যালিফোর্নিয়ার প্রাক্তন অ্যাটর্নি জেনারেল কমলা হ্যারিস ২০১ 2016 সালে

প্রথমবারের মতো মার্কিন সিনেটের সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।

ভারতীয়-আমেরিকান সরে গেলে ট্রাম্প নিশ্চিন্ত

কমলা হ্যারিস যখন এই নির্বাচনে দাড়াবার কথা ঘোষণা করেছিলেন তখন

সবচেয়ে বেশি চিন্তা ডোনাল্ড ট্রাম্পের শিবিরে ছিলো।  খোদ ডোনাল্ড ট্রাম্প

এই মহিলার মাঠে নামা নিয়ে চিন্তায় ছিলেন। আসলে আমেরিকার রাষ্ট্রপতি

নির্বাচনে ভারতীয়-আমেরিকান ভোটারদের সংখ্যা বেশ ভাল। এই ভোটাররা

যদি একজোটে কোন পক্ষকে সমর্থন জানায় তো ভোটের পাল্লা সেই দিকে ঝূঁকে

যেতেই পারে। এই জন্য কমলা হ্যারিসে মাঠে নামার পর থেকে বিরোধী শিবির

চিন্তায় ছিলো। তবে নিজের আর্থিক সাচ্ছলতা না থাকার জন্য এই নির্বাচন থেকে

নিজের নাম প্রত্যাহার করার ঘোষণা করে কমলা একটি ভাল দৃষ্টান্ত তুলে ধরতে

সফল হয়েছেন। আশা করা যায় যে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেবার পরেও

কমলা আগামী নির্বাচনে যেই পক্ষ্যে থাকবেন, সেই পক্ষ্যের প্রত্যাশী সুবিধার

অবস্থ্যায় থাকবে।


 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

Be First to Comment

Leave a Reply

Mission News Theme by Compete Themes.
error: Content is protected !!