অরক্ষিত জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্যভাণ্ডার – ভারতকে সতর্ক করলেন গবেষক

0 20
নযা দিল্লি (এজেন্সী) – যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক একজন গবেষক দেখিয়েছেন, জাতীয় তথ্যভাণ্ডারে যুক্ত হযে নাগরিকদের সংরক্ষিত তথ্য দেখতে পারে এমন একটি ওযেসাইটের জন্য বরাদ্দকৃত প্রবেশাধিকারের অপব্যবহার করা সম্ভব| যার ফলে ভারতের যত নাগরিকের আধার নিবন্ধন আছে, কার্য ত তাদের সবার তথ্যই সরকারি তথ্য ভাণ্ডার থেকে বেহাত হযে যেতে পারে|
ভারতের তথ্য ভাণ্ডারে এর আগে ঘটা একই রকম অনধিকার প্রবেশের সুযোগ সংক্রান্ত ঘটনার কথা উল্লেখ করে জেডডিনেট তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, আধার কার্ডের তথ্যভাণ্ডারে আঙুলের ছাপ ও চোখের মণির মতো স্পর্শকাতর বাযোমেট্রিক ডাটার পাশাপাশি নাগরিকদের ব্যাংকিং সেবা সংক্রান্ত তথ্যও থাকে|
ভারতের প্রায় ১০০ কোটি নাগরিকের হাতে থাকা আধার কার্ড নেওযাটা বাধ্যতামূলক না হলেও, ওই পরিচয়পত্র ছাড়া নূন্যতম কোন সুযোগ গ্রহণ করা যায়না|
ব্যাংক হিসাব থেকে শুরু করে মোবাইল ফোনের সিম কার্ড, পরিষেবার জন্য নিবন্ধ করা থেকে শুরু করে সরকারি সাহায্য পাওযা, সবকিছুতেই আধার কার্ড দরকার হয়|
এমনকি আমাজন, উবারের মতো বেসরকারি প্রতিষ্ঠানেরও নাগরিকদের তথ্যভাণ্ডারে প্রবেশাধিকার আছে|
এমন স্পর্শকাতর একটি তথ্যভাণ্ডারে থাকা তথ্যের গোপনীয়তা নিশ্চিত করা যাচ্ছে কি না তা নিযে আরও একবার প্রশ্ন উঠেছে|

পরিচয়পত্রের ভেতরে আছে স্পর্শকাতর তথ্য ভাণ্ডার

জেডডিনেটকে নযাদিল্লিভিত্তিক প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ কারান সাইনি জানিয়েছেন, সরকারি মালিকানাধীন গ্যাস সরবরাহের প্রতিষ্ঠান ইনডেনের ওযেসাইটের ত্রুটি ব্যবহার করে আধার কার্ডের তথ্যভাণ্ডারে নিবন্ধিত সব নাগরিকের তথ্য দেখা যায় ডাউনলোড করেও রাখা যায়|
তথ্যভাণ্ডারে ওই ওযেসাইটের জন্য বরাদ্দ রাখা প্রবেশাধিকার অরক্ষিত থাকায়, ১২ সংখ্যার যেকোনও আধার কার্ড নম্বর দিযে ওই কার্ডের বিপরীতে থাকা নাগরিকের পরিচয় তো বটেই, এমনকি ওই নাগরিক কোন কোন সেবা গ্রহণে আধার কার্ড ব্যবহার করেছে, কোন ব্যাংকে তার হিসেব আছে ইত্যাদি স্পর্শকাতর সব তথ্যই সরকারি তথ্যভাণ্ডার থেকে বের করে নেওযা যায়|
তথ্যভাণ্ডারে প্রবেশাধিকারের এই অসুরক্ষিত অবস্থা নিযে ভারত সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রায় এক মাস অপেক্ষা করেছে জেডডিনেট, কোনও সাড়া পায়নি তারা|
পরবর্তীতে নিউ ইয়র্কে থাকা ভারতীয় দূতাবাসের দেবী প্রসাদ মিশ্রার সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা নিজেরাই বরং পাল্টা প্রশ্নের মুখে পড়ে|
তারপর এক সপ্তাহ পার হযে গেলেও ভারত সরকার নাগরিকদের তথ্য ভাণ্ডার সুরক্ষিত করার বিষযে কোনও উদ্যোগ নেয়নি| শুক্রবার জেডডিনেট এ নিযে প্রতিবেদন প্রকাশ করার কযে ঘন্টার মধ্যে অপব্যবহারের সুযোগ থাকা ওযেসাইটটি বন্ধ করে দেওযা হয়েছিল|
প্রতিবেদনে তথ্যভাণ্ডারের তথ্য বেহাত হওযার সুযোগের কথা সামনে আসার পর ভারতের ‘ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি’ (ইউডিএআই) খবরটির সত্যতা নেই বলে দাবি করেছে|
ইউডিএআই শক্তিশালী ভাষায় লেখা এক টুইটার বার্তায় দাবি করেছে, ‘আধার তথ্যভাণ্ডার নিরাপদ ও সুরক্ষিত আছে|’
তথ্যভাণ্ডার ব্যবস্থাপনায় থাকা সরকারি সংস্থা ইউডিএআই অস্বীকার করলেও, আন্তর্জাতিক বার্তাসংস্থা রয়টার্স থেকে শুরু করে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভিও এ বিষযে জেডডিনেটের বরাতে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে|
তথ্য সুরক্ষা নিযে ভারতে জোর আলোচনা চলছে| সরকারের পক্ষ থেকে এমন কথাও বলা হয়েছে, প্রযোজন হলে ফেসবুকের জাকারবার্গকে ভারতে তলব করা হবে|
এমন মুহুর্তে সামনে এলো সরকারি তথ্যভাণ্ডারের অপর্য়াপ্ত সুরক্ষা ব্যবস্থার খবর|

You might also like More from author

Comments

Loading...