Press "Enter" to skip to content

হেমতাবাদের বিজেপি বিধায়কের মৃত্যুর ঘটনায় একজন আটক

মালদাঃ হেমতাবাদের বিজেপি বিধায়কের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় মালদা থেকে একজন

সমবায় ব্যাংক কর্মীকে আটক করে রায়গঞ্জে নিয়ে গেল সিআইডি। যদিও এই ঘটনায় চাচোলের

আরেক অভিযুক্তের খোঁজ শুরু করেছে মালদা সিআইডি। মঙ্গলবার দুপুরে সড়কপথে মালদা

থেকে আটক নিলয় সিংহ নামে ওই ব্যক্তিকে রায়গঞ্জে নিয়ে যায় মালদা সিআইডির কর্তারা।

নেতৃত্বে ছিলেন মালদা সিআইডির আধিকারিক শৈবাল বাগচি।এদিকে হেমতাবাদের বিজেপি

বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনার পিছনে চাচোলের মাবুদ আলির বলে

আরেক অভিযুক্তের খোঁজ শুরু করেছে পুলিশ এবং সিআইডির কর্তারা। যদিও সোমবার গভীর

রাতে চাচোল থানার পুলিশ দারিয়াপুর গ্রামে ওই ব্যক্তির বাড়িতে অভিযান চালিয়ে মাবুদ

আলিকে ধরতে পারি নি। পুলিশের আগাম অভিযানের খবর পেয়ে এলাকা থেকে চম্পট দেয় ওই

ব্যক্তি। এদিকে পুলিশ ও সিআইডি সূত্রে জানা গিয়েছে, মালদা শহরের মকদমপুর এলাকার একটি

আবাসনে থাকতেন নিলয় সিংহ এবং তার স্ত্রী। তাদের একটি নাবালিকা কন্যা সন্তান রয়েছে।

রায়গঞ্জের একটি সমবায় ব্যাংকে চাকরি করেন নিলয় সিংহ। সোমবার গভীর রাতে মকদমপুর

এলাকার ওই আবাসনে ইংরেজ বাজার থানার আইসি মদনমোহন রায়ের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ

বাহিনী অভিযান চালায়। কিন্তু রাতে নিলয় সিংহকে পাই নি পুলিশ। এরপর মঙ্গলবার ভোরে

নিলয় সিংহ মালদার মকদমপুর এলাকার নিজের আবাসনে ফিরতে পুলিশ তাকে আটক করে

থানায় নিয়ে যায়। এরপর সিআইডি’র কর্তারা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। এরপরে দুপুরে

মালদার সিআইডি কর্তারা নিলয় সিংহকে আটক করে রায়গঞ্জে নিয়ে যায়।এদিকে এদিন মালদা

থেকে রায়গঞ্জ যাওয়ার পথে নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেছেন নিলয় সিংহ। তিনি বলেছেন,

ঘটনার পিছনে গভীর ষড়যন্ত্র রয়েছে। বিধায়কের সাথে তার পরিচিতি থাকলেও তাকে মাবুদ

আলি নামে এক ব্যক্তি ফাঁসিয়েছে। এদিকে সোমবার রাতে অভিযান চালিয়ে মাবুদ আলিকে

ধরতে করতে পারে নি চাচোল থানার পুলিশ। তবে তার খোঁজে জোর তল্লাশি শুরু করেছে

মালদা পুলিশ এবং সিআইডির কর্তারা।

হেমতাবাদের বিধায়কের মৃতদেহ চায় দোকানে ঝূলে ছিলো

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার সকালে হেমতাবাদ এলাকার একটি চায়ের দোকানের

সামনে রহস্যজনক অবস্থায় বিজেপি বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। এই

ঘটনায় খুনের অভিযোগে প্রতিবাদ জানিয়ে মঙ্গলবার ১২ ঘন্টার উত্তরবঙ্গ ডাক দিয়েছে বিজেপি

নেতৃত্ব। বিজেপির বিধায়কের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় মালদার দুইজনের নাম উঠে আসায়

ব্যাপক শোরগোল পড়ে গিয়েছে। পুলিশের একটি সূত্র থেকে জানা গিয়েছে , বিজেপি বিধায়কের

মৃতদেহের কাছ থেকেই একটি চিরকুট পাওয়া গিয়েছিল। তাতেই মালদার এই দুজন ব্যক্তির নাম

উল্লেখ করা ছিল। সেই সূত্র ধরেই উত্তরদিনাজপুর জেলার পুলিশ ও গোয়েন্দা কর্তারা মালদা

পুলিশকে বিষয়টি জানায়। আর তারপরই শুরু হয় অভিযান। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে , মাবুদ

আলি বিভিন্ন মানুষকে ব্যাংক থেকে লোন দেওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়ার কাজে নিযুক্ত রয়েছে।

কিন্তু তাকে এখনো পুলিশ খুঁজে পাই নি।বিজেপির মালদা জেলার সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মন্ডল

জানিয়েছেন, দলের বিধায়ককে খুন করা হয়েছে। এই ঘটনার পিছনে গভীর ষড়যন্ত্র কাজ

করেছে। যাদের নাম উঠে এসেছে তাদেরকে গ্রেফতার করে প্রকৃত তদন্ত করলেই সমস্ত ঘটনা

বেরিয়ে আসবে। বিধায়ক খুনের প্রতিবাদ জানিয়ে এদিন উত্তরবঙ্গ ১২ ঘন্টা বনধ্ সুষ্ঠুভাবে

সম্পন্ন হয়েছে


 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
More from অপরাধMore posts in অপরাধ »
More from নেতাMore posts in নেতা »
More from রাজনীতিMore posts in রাজনীতি »
More from ল এন্ড অর্ডারMore posts in ল এন্ড অর্ডার »

Be First to Comment

Leave a Reply

Mission News Theme by Compete Themes.
error: Content is protected !!