My title page contents Press "Enter" to skip to content

বিনা নোটিশে হাজারদুয়ারী মিউজিয়াম বন্ধে ব্যাপক শোরগোল




মুর্শিদাবাদ: বিনা নোটিশে বন্ধ রাখা হল হাজারদুয়ারি মিউজিয়াম ।

ফলে বুধবার এই খবর প্রকাশ পেতেই সব মহল জুড়েই তীব্র শোরগোল শুরু হয়েছে।

বাইরে থেকে ঘুরতে আসা পর্যটকরা ইতিহাস দর্শন না করেই বাড়ি ফিরে যেতে বাধ্য হলেন।

কিন্তু হঠাৎ করে এ ভাবে হাজারদুয়ারি বন্ধ করে দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী থেকে পর্যটকরা।

নাম জানাতে অনিচ্ছুক মিউজিয়ামের দায়িত্বে থাকা এক কর্তা বলেন , “ সোমবার বিকেলের পর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের এক টেলিফোন বার্তা পেয়ে ভোটের দিন হাজারদুয়ারি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় ।”

নিয়ম মাফিক ভাবে প্রতি শুক্রবার হাজারদুয়ারি বন্ধ থাকে।

এছাড়া বছরের আর কোনও দিন হাজারদুয়ারি বন্ধ থাকে না বলে পর্যটকরা যেমন জানেন, তেমনি এলাকার ব্যবসায়ী মহলও সেই ব্যপারে ওয়াকিবহল।

কিন্তু মঙ্গলবার তৃতীয় দফায় জঙ্গিপুর ও মুর্শিদাবাদ লোকসভার ভোট অনুষ্ঠিত হওয়ায় হাজারদুয়ারি প্যালেস এই ভাবে আচমকা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহন করে কর্তৃপক্ষ।

অবশ্য মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে নবাবি সাম্রজ্যের এই স্থাপত্য।

এর আগেও এলাকায় বিভিন্ন সময় একাধিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে দেখা গিয়েছে।

কিন্তু ঐতিহাসিক হাজারদুয়ারি বন্ধ হতে দেখা যায় নি কোনও দিন ।

তাহলে এবার কেন এই সিদ্ধান্ত জানতে এদিন ফোন করা হয়েছিল হাজারদুয়ারি প্যালেস মিউজিয়ামের ডেপুটি সুপারন্টেন্ডেন্ট ডঃ গোপী নাথ জেনা কে ।

কিন্তু জানা যায় তিনি বেশ কিছু দিন ছুটিতে রয়েছেন।

এদিকে এই সিদ্ধান্তের ফলে হাজারদুয়ারি ঘুরতে এসে নিরাশ হয়ে বাড়ি ফিরে যান, বীরভূমের অমিয় সরকার, পলাশি থেকে সপরিবারে এসেছিলেন কলিমুদ্দিন শেখ।

বিনা নোটিশে বন্দ করার দরুর স্থানীয় ব্যাবসায়িরা ক্ষুব্ধ

তারা বলেন, “ ভেবেছিলাম এলাকায় ভোট তাই একটু ফাঁকা ফাঁকা ঘুরে দেখব।

কিন্তু এখানে এসে জানতে পারলাম ভোটের কারনে হাজারদুয়ারি বন্ধ।

কি আর করি বাধ্য হয়ে পরিবার কে নিয়ে প্রাসাদের বাইরে টা দর্শন করে বাড়ি ফিরে যাচ্ছি।”

শুধু এই দুটি পরিবার নয় কয়েক শো পরিবার কে হাজারদুয়ারি দর্শন অধরা রেখেই এদিন ফিরে যেতে হয়।

এই ব্যাপারে স্থানীয় চা বিক্রেতা মিলন দাস, টাঙ্গাচালক অলোক সরকার ও প্রসাধনী বিক্রেতা মেকাইল শেখরা বলেন, “ এখন পর্যটনের অফ সিজিন।

এমনিতেই এই সময় কালে পর্যটক কম আসেন।

তার উপর এই ভাবে দুম করে প্যালেস বন্ধ করে দিয়ে আমাদের জীবিকার উপর আঘাত আনা হয়েছে।”

স্থানীয় বাসিন্দারা দাবি করে বলেছেন এর আগের অর্থাৎ ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের দিন

ভোট পর্ব মিটে গেলে বিকেল থেকে ঝাকে ঝাকে কেন্দ্রীয় বাহিনী হাজারদুয়ারি দর্শনে এসেছিলেন।

কাজের সূত্রে এসে ইতিহাস দর্শন কিন্তু একটা বাড়তি পাওনা বলে মন্তব্য করেছেন

স্থানীয় সাহজামাল শেখ , দিলোয়ার হোসেন ,সঞ্জয় সাহারা।



Spread the love
More from পশ্চিমবঙ্গMore posts in পশ্চিমবঙ্গ »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.