নক্সাল ক্ষেত্রের যুবক যুবতিদেরকে রোজগারের সাথে যুক্ত করা হোক ঃ মুখ্যমন্ত্রী

0 16
লাতেহার (সং) ঃ মুখ্যমন্ত্রী শ্রী রঘুবর দাস লাতেহার জেলার বেতলা অঞ্চলের উন্নয়ন বিষযে জেলার আধিকারিকদের সাথে বৈঠক করলেন| শ্রী দাস আধিকারিকদের নির্দেশ দেন গ্রামবাসীদের মতামত নিযে গ্রামের উন্নতির প্রকল্প প্রস্তুত করতে হবে| তিনি বললেন রাজ্যতে দারিদ্রতার অবসানের জন্য মানুষজনকে স্বনির্ভরে পরিনত করাটাই বিশেষ প্রযোজন|
আধিকারিক গ্রামে পৌঁছে গ্রামবাসীদের সাথে কথাবার্তার মাধ্যমে এমনটাই বুঝবে গ্রামের উন্নতির জন্য বিশেষ প্রযোজন কি|
শ্রী দাস আধিকারিকদের নির্দেশ দেন এমন সব অঞ্চলের নির্বাচন করতে হবে যেখানে এখনও অবধি কোন সড়ক ব্যাবস্থাই নেই, এছাড়া সুদুরপ্রান্তে পৌঁছে সেখানে পথের সাথে যুক্ত করার প্রকল্প প্রস্তুত করে সড়ক এবং পুল পুলিযা নির্মানের কার্যনটি করতে হবে|
তিনি আরও বললেন সুদূর গ্রামগুলিতে পৌঁছানোর জন্য পথ না থাকার কারনে উন্নয়নে বাধার সৃষ্টি হচ্ছে|
মুখ্যমন্ত্রী বললেন শ্রী দাস আধিকারিকদের নির্দেশ দেন নক্সাল এবং মাওবাদকে বিনষ্ট করতে গ্রামেতে রোজগারের পথ খুলতে হবে|
তিনি জানালেন গ্রাম এবং গ্রামবাসীদের উন্নয়নের জন্য সরকার বিভিন্ন প্রকল্প চালাচ্ছে যেমন গ্রামবাসীদের স্বনির্ভরে পরিনত করতে সেখানে পৌঁছানোর জন্য পথের নির্মান, মুরগী পোষা, ছাগোল পালোণ, চেকড্যাম, জলাশয়, মাছের চাষ ইত্যাদি|

হিংসা বিনষ্ট করতে রোজগারের পথ খূলতে হবে- মুখ্যমন্ত্রী

বৈঠকে আধিকারিকেরা বুঢ়া পাহাড়ে ঢেড় হওযা নক্সালদের আধিপত্যকে বিনাশ করার জন্য যেসব অভিযান চালাতে যেসব সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে সেই বিষযে আলোচনা হয়|
মুখ্যমন্ত্রীর মতে বুঢ়া পাহাড়কে নক্সালদের হাত থেকে মুক্ত করার জন্য সড়ক নির্মান করতে হবে আর সাথে সাথে গ্রামবাসীদের জন্য ছোট ছোট সব রোজগারের ব্যাবস্থা করতে হবে|
তিনি মনে করেন সেখানে পৌঁছানোর জন্য কোন পথের ব্যাবস্থা না থাকাতে আধিকারিকেরা সেখানে পৌছাতে না পারার কারনে গ্রামবাসীদের খবরাখবর আধিকারিকেরা পায় না আর তারাও সরকারী প্রকল্পের থেকে দূরে থেকে যায়|
তিনি বুঢ়া পাহাড় সহ আশেপাশের অঞ্চলের পৌঁছানোর জন্য পথ নির্মানের নির্দেশ দেন| এই কাজে তিনি পুলিশী ব্যাবস্থার সহযোগের কথাটিরও উল্লেখ করেন|
মুখ্যমন্ত্রী শ্রী রঘুবর দাস অধিকারীদের বললেন নক্সাল অধু্য়ষিত অঞ্চলে রোজগারের পথ অধিক পরিমানে খোলার জন্য গ্রামের পড়াশুনা জানা যুবক এবং যুবতীদের রোজগারের উপার্জনের সাথে যুক্ত করতে হবে|
তিনি এমনটাও বললেন সেখানের বিদ্যালয়, উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্র ছাড়াও অন্যান্য সরকারী সংস্থাতে যেখানে কর্মচারীর অভাব দেখা যাচ্ছে সেইসব স্থানে গ্রামেরই পড়াশুনা জানা মানুষদের নিযুক্ত করে নিযে তাদের চাকুরীর ব্যাবস্থা করা যাতে গ্রামের উন্নয়নের সাথে সাথে যুবক যুবতীদের উপার্জনের পথও খুলে যায়|
এছাড়া তিনি জেলার আধিকারিকদের মহিলাদের স্বনির্ভরের দিশাতে জোহার যোজনার সাথে যুক্তের কথাটিও বললেন|
তিনি জানালেন জোহার যোজনার মাধ্যমে মহিলারা মুরগী পুষে সেই থেকে ডিম উত্পাদন হলে কাছের বিদ্যালযে পুলিশ ক্যাম্পে সেইসব ডিম সাপ্লাই করলে মহিলারা অনেক লাভে থাকবে|
বৈঠকে ডি আই জি শ্রী বিপুল শুক্লা, জেলাশাসক শ্রী রাজীব কুমার, পুলিশ সুপার শ্রী প্রশান্ত আনন্দ, উপ উন্নয়ন কমিশনার শ্রী অনিল কুমার সিংহ| ফরেস্ট বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক শ্রী এম পি সিংহ, জেলা প্রকল্প পদকর্তা শ্রী নির্মল ঝা ছাড়াও অন্যান্য প্রশাসনিক, পুলিশ এবং বন বিভাগের অধিকারীরা উপস্থিত ছিলেন|

You might also like More from author

Comments

Loading...