Press "Enter" to skip to content

বাহরাইচে বাঘটি বনরক্ষীকে মেরে খেয়ে ফেলেছে

বাহরাইচ: বাহরাইচে বাঘের আক্রমণে মারা গিয়েছে একজন বন রক্ষক। সেখানকার

কাটনিয়াঘাটের সুরক্ষিত বন অঞ্চলে টহলরত এক ফরেস্ট গার্ডকে বাঘ ধরে নিয়ে যায়। সে বাঘের

খপ্পরে পড়েছে, সেটি তাড়াতাড়ি জানা যায় নি। বিভাগীয় সূত্রে খবর, কাটারনিয়া রেঞ্জে পোস্ট করা

ভানভাচার বাধু (65) বুধবার কাটিয়ারা বিটের ৫ এ এ টহল দেওয়ার জন্য গিয়েছিলেন। সন্ধ্যা

সোয়া চারটা নাগাদ বাড়ি না ফেরার পরে পরিবারটি তাদের প্রতিবেশী গ্রামবাসীদের সন্ধান করতে

শুরু করে। গভীর রাত জুড়ে নিবিড় তল্লাশির পরে বৃহস্পতিবার সকালে বনাঞ্চলের এক বিকৃত

দেহটি বেতের ঘন জঙ্গলে পড়ে থাকতে দেখা যায়। গ্রামবাসীরা যখন লাশ থেকে প্রায় ৫০ মিটার দূরে

বাঘটি দেখতে পেয়েছিল তখন তারা লাশটির কাছাকাছি যেতে শুরু করে। বাঘ দেখে সবাই হতবাক

হয়ে গেল। সবাই লাঠি হাতে চেঁচিয়ে উঠলে কিছুক্ষণের জন্য বাঘটি বন পর্যবেক্ষকের লাশের কাছে

বসার পরে ঘন বনে চলে যায়। গ্রামবাসীরা বন দফতরে ঘটনার কথা জানিয়েছেন। কর্তনিয়া রেঞ্জের

ডেপুটি রেঞ্জার শত্রোহন লাল বন দারোগা অনিল কুমার, ওয়াচটার রবীন্দ্র থানার সুজুলি পুলিশ

দারোগা জিতেন্দ্র রাই, দারোগা অশোক জয়সওয়াল এসএসবিকে, বি কে কুমার এএসআই, ঘানাজি

কাছাদে, উগ্রসেন ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহটি পেলেন। হয়। ডেপুটি রেঞ্জার শত্রোহন লাল জানান,

বনভচর বাধু গতকাল বন এলাকায় টহল দেওয়ার জন্য গিয়েছিলেন। আজ সকালে ঘন জঙ্গলে এর

মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রথম দর্শনে এটি বাঘের আক্রমণ বলে মনে হচ্ছে তবে কোন হিংস্র প্রাণী

এটি হত্যা করেছে।

বাহরাইচে ম্যানইটার বাঘের ক্রিয়াকলাপ বেড়েছে

উত্তরপ্রদেশের ইল বাহরাইচ এবং আশেপাশের অঞ্চলে বিগত কয়েক বছরে বাঘ যারা ম্যানইটার হয়ে

গেছে তারা আসা যাওয়া বেড়েছে। বাঘ সাধারণত একটি বন্য প্রাণী ছাড়া মানুষের শিকার করে না।

বাঘ শিকারের অভাব বা শারীরিকভাবে দুর্বল হওয়ার পরেই মানুষকে আক্রমণ করে। তবে

বিপরীতে, পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের মধ্যবর্তী সুন্দরবন অঞ্চলে, বাঘ জটিল পরিস্থিতিতে জীবন

যাপনের কারণে শারীরিকভাবে আরও সক্ষম। এর পরেও তাদের অধিকাংশ ম্যানইটার। তার কারণ

হয়তো সমুদ্রের জলের লবণাক্ততা। কিন্তু বাহরাইচের এই ধরনের ঘটনায় গ্রামের লোকেরা আবার

চিন্তায় পড়েছে।


 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
More from উত্তরপ্রদেশMore posts in উত্তরপ্রদেশ »

Be First to Comment

Leave a Reply

Mission News Theme by Compete Themes.
error: Content is protected !!