My title page contents Press "Enter" to skip to content

সাইবার ক্রিমিনালদের একটি বিশাল দলকে ধরতে সফল হল পুলিস




  • প্রথম হানায় ১২ জন সাইবার অপরাধী পুলিসের খপ্পরে

  • নতূন নতূন খবর পেয়ে আরও লোক ধরা হচ্ছে

  • পুলিসের বড় অফিসারের কাছে খবর ছিলো

সংবাদদাতা

রাঁচি: সাইবার ক্রিমিনালদের একটি বেশ বড় দলকে ধরতে সফল হয়েছে রাঁচি পুলিশ।

সিআইডি ও এটিএসের একটি দল অনলাইন সাইবার-জালিয়াতি সম্পর্কিত তথ্য সম্পর্কে

স্থানীয় পান্ড্রা আউট পোস্ট এলাকা এবং রাতূ রোডের দেবী মন্ডপ রোডে হানা দেয়।

রাতূ রোডের যে বাড়িতে পুলিস হানা দেয়, তার মালিক অন্য লোক।

তবে সেখানে থাকা ভাড়াটেদের ওপর এই অভিয়ান চালান হয়েছিলো।

সেই ঠিকানা থেকে বেশ কিছূ লোক ধরা পড়ার পর একের পর এক নতূন নতূন ঘটনা সামনে আসতে থাকে।

সেই হিসেবে অন্য বেশ কিছু এলাকায় পুলিসের তল্লাশী অভিয়ান চলে।

তার ফলে প্রাথমিক ভাবে মোট ১২জন কে পুলিস গ্রেফতার করেছে।

তথ্য অনুযায়ী, সিআইডি বড় কর্তা এডিজি অনুরাগ গুপ্তা এই ব্যাপারে কিছূ খবর পেয়েছিলেন।

তাঁর নির্দেশে সিআইডি এবং এটিএস এই অভিযানে ভাগ নেয়।

আগাম খবরের ওপরে ভিত্তি করেই প্রথম দূটি এলাকায় তল্লাশী চালান হয়।

সেখান থেকে লোক ধরার পড়ার সাথে সাথে বেশ কিছূ প্রমাণ পুলিস পেয়ে যায়।

এই নতূন তথ্যের ভিত্তিতে পুলিসের অভিযান এখনও চলছে।

শেষ খবর হিসেবে মোট ২২ জনকে এখন পর্য্যন্ত আরেস্ট করা হয়েছে।

ঝারখণ্ডের বেশ কিছূ এলাকা এই ধরনের সাইবার ক্রাইমের জন্য খূব বদনাম।

বিশেষ করে রাজ্যের জামতাড়া এবং তার পাশের এলাকায় প্রায় ভারতবর্ষের সব রাজ্যের পুলিস হানা দেয়।

তবে রাঁচিতে এই ধরনের ঘটনা এই প্রথম।

সাইবার ক্রিমিনালদের ব্যাপার প্রতি মুহুর্তে নতূন নতূন খবর পাবার দরুন পুলিসের কাজ বেড়ে চলেছে।

যখন প্রথম তল্লাশী চালান হয়েছিলো, তখন পুলিসও আন্দাজ করতে পারেনি যে এই জালে এত বেশি মাছ ধরা পড়বে।

মাছ ধরা পড়া শুরুর হবার পরে কাজ এগিয়ে চলেছে।

সাইবার ক্রিমিনালদের ধরার কাজ চলতে থাকার দরুন পুলিসের মুখ বন্দ

একের পর এক সাইবার ক্রিমিনালদের প্রথম বার আরেস্ট করার জন্যই পুলিস এখন মুখ খুলতে চাইছে না।

সাইবার ক্রিমিনালদের ধরা পড়ার প্রাথমিক পর্যায়ের পরে এটা জানান হয়েছিলো যে পুলিস আজ সন্ধ্যে সাতটায় এই ব্যাপারে প্রেস কনফারেন্স করে সব ব্যাপার জানাবে।

তবে শেষ মুহুর্তে এই প্রেস কনফারেন্স ক্যান্সেল করে দেওয়া হয়।

বোঝা যাচ্ছে যে নতূন নতূন খবর এবং নতূন নতূন সাইবার ক্রিমিনালদের ধরার পরেও ইনভেস্টিগেশনের গাড়ি এগিয়ে চলেছে।

তাই পুলিস প্রেস কনফারেসন্স করে নি।

অতিরিক্ত সময় পেয়ে পুলিস যে সমস্ত খবর পেয়েছে তার ভিত্তিতে আরও সব সাইবার ক্রিমিনালদের ধরে ফেলতে চায়।



Spread the love

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.