My title page contents Press "Enter" to skip to content

বিজেপির সমর্থক ও পুলিশের খণ্ডযুদ্ধে এএসআই সমেত প্রচুর আহত




  • বিজয় জুলুস রুখে দেবার পরে শুরু হয় আক্রমন

  • ঘটনার পরে দশ জন বিজেপি সমর্থক গ্রেফ্তার

প্রতিনিধি

দক্ষিণ দিনাজপুর: বিজেপির সমর্থক ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষে এএসআইসহ অনেক লোক আহত হয়েছেন।

বাংলার দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুরে বিজেপির বিজয় রালি বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর হিংসা ছড়িয়ে পড়ে।

এতে এএসআইসহ বেশ কয়েকজন পুলিশ আহত হন।

এ ঘটনায় বিপুল সংখ্যক বিজেপি সমর্থক আহত হয়েছে।

হিংস্র ভিড় পুলিশের গাড়ি ভাংচুর করে। বিজেপির বিজয়ী জুলুসের নেতৃত্বে ছিলেন সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে টিয়ার গ্যাস ছুড়তে হয়।

এ ঘটনায় গঙ্গারামপুর থানার এএসআই ভুট্টু ভট্টাচার্য গুরুতর আহত হন।

এ ছাড়াও ব্রতীয়া নামে একটি সিভিক স্বেচ্ছাসেবকের মুখ ভেঙ্গে গেছে।

দক্ষিণ দিনাজপুরের এসপি প্রসুন ব্যানার্জী ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন এবং পরিস্থিতি সামলাচ্ছেন।

এই ঘটনার পর থেকে এলাকায় ভারী চাপ সৃষ্টি হয়েছে।

উল্লেখযোগ্যভাবে, এই বিজেপি বালুরঘাট লোকসভা আসন থেকে জিতেছে।

শনিবার, দলের পক্ষ থেকে সিটিজেন গ্রিটিং হাউস আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে যোগ দেন বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

এর আগে, ঘোড়া জেলার বিনদপুরের পার্টি অফিসে বিজেপির নেতারা ও বেসামরিক বাস স্ট্যান্ড থেকে

বেস রূপান্তরিত হয়ে সমর্থকদের সংগঠন একটি সমাবেশ আয়োজন করেছিল।

বেলুঘাট থেকে বিজেপির এমপি, সুকান্ত মজুমদার, দলের জেলা সভাপতি শুভুধু সরকার এবং অন্যান্য নেতারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

বলা হয়, সমাবেশের সমাধির পর সভাপতি রাষ্ট্রপতি দিলীপ ঘোষ তার সমর্থকদের সাথে গঙ্গারামপুরে একটি সমাবেশ করেন।

প্রশাসনের অংশে প্রশাসন 144 ধারা জারি করে পুলিশ প্রাথমিকভাবে সমাবেশ বন্ধ করে দেয়।

বিজেপির সমর্থক এবং পুলিস ভিতর কয়েক বার হয় মারামারি




পুলিশ রাগান্বিত, বিজেপির সমর্থকরা পুলিশ সমাবেশে হামলা শুরু করে।

এর পাশাপাশি বিক্ষোভকারীরা পুলিশের গাড়ি ভাংচুর করে।

ভীড়ের দিক থেকে ছোঁড়া পাথরে সিভিক ভলেন্টিয়ার সহ এএসআই পুলিশ কর্মিবৃন্দ, জন আহত হয়েছেন।

অন্যদিকে, এই ঘটনায় বেশ কিছূ বিজেপি কর্মী আহত হয়েছেন।

অবস্থা কাটিয়ে উঠতে পুলিশ প্রথমে লাঠি চার্জ করে।

পরিস্থিতি না সামলানোর পরে শুন্যে গুলি চালাবার পরে হিংস্র লোকেরা পিছূ হটে।

ঘটনার সাথে জড়িত 10 জন বিজেপি সমর্থককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বিজেপির সমর্থক এবং পুলিসের এই ঝামেলার জের আগে গড়াবে বলে সবাই আন্দাজ করছে।

রাজ্যের বেশ কিছূ অন্য এলাকাতেও এই একই ধরনের ঝামেলা হয়ে চলেছে।




Spread the love
More from নির্বাচনMore posts in নির্বাচন »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Mission News Theme by Compete Themes.