বিজেপি নেতা গিরিরাজ বললেন আবার দেশ ভাগ হবে

giriraj singh
Spread the love

 

প্রতিনিধি

নয়াদিল্লীঃ বিজেপির বাচাল নেতা গিরিরাজ সিং আবার মুখ খুললেন।

আগের মতো এবারও তাঁর কথা নিয়ে নতুন বিতর্ক শুরু হয়ে গেছে।

বিহারের এই নেতাকে এর আগেও বিতর্কিত মন্তব্য করার জন্য পার্টির পক্ষ থেকে সাবধান করে দেওয়া হয়েছিল,

কিন্তু তিনি সেই কথা শোনেন নি।

তাই আসন্ন নির্বাচনের আগে তাঁর মন্তব্যকে ঘিরে নানান কথাবার্তা হচ্ছে।

প্রত্যেক বার এই ধরনের কিছু কিছু কথার বলে গিরিরাজ সিংহ পার্টির ঝামেলা বাড়িয়ে দেন।

এখন ইলেকশনের মাথায় তিনি আবার নতুন করে বিতর্কের ঝড় তুলেছেন।

বিজেপির এই নেতা গিরিরাজ সিং সব সময় বিতর্কের মধ্যে থাকেন।

তাঁর প্রত্যেক কথার ভেতরে এমন কিছু যাকে যেটি নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়।

জনসংখ্যা বৃদ্ধিই এর কারণ

এবার তিনি দাবি করেছেন যে ২০৪৭ সালে ফের দেশ ভাগ হতে পারে।

দেশে  সেই রকম পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে মন্তব্য করেন তিনি।
গিরিরাজ বলেছেন, ১৯৪৭ সালে ধর্মের ভিত্তিতে দেশ ভাগ হয়েছিল।

যার ফল আজও আমরা ভোগ করছি। ৭২ বছরে আমাদের দেশের জনসংখ্যা ৩৩ কোটি থেকে ১৩৫.৭ কোটিতে পৌঁছে গিয়েছে।

ফলে আবার একবার দেশভাগের প্রয়োজন তৈরি হওয়ার আশঙ্কার কথা তিনি সামনে এনেছেন।

কোনও সম্প্রদায়ের নাম না করে তিনি বলেছেন, বিচ্ছিন্নতাবাদী শক্তির সংখ্যা সমষ্টিগতভাবে বেড়ে গিয়েছে।

ফলে আগামী দিনে এই দেশকে ভারত বলে ডাকাও অসম্ভব হয়ে উঠতে পারে বলে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন তিনি।

বিজেপির রাষ্ট্রীয় অধ্যক্ষ অমিত শাহ ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলতে বাধ্য হয়েছেন যে পার্টির নেতারা একটু কম কথা বললে ভাল হবে।

নির্বাচন কাছে আসার সময় নতুন করে ঝামেলায় পড়তে চান না তাঁরা।

তবে গিরিরাজ এবং আরও কিছূ নেতার কাছে এই ধরনের কথা বলার আনন্দটা বোধহয় অন্যরকম।

পার্টির কি ক্ষতি হচ্ছে বা তাঁর মন্তব্যের জেরে সমাজে পার্টির কি ছবি তৈরি হচ্ছে,

সেটা নিয়ে তাঁর কোন মাথাব্যথা নেই। তিনি খোশ মেজাজে নিজের কথা বলে চলেন।

তাই তাঁর মন্তব্যকে ঘিরে পার্টি কি করবে সেটাই এখন দেখার।

Author: Bangla R khabar

Loading...