কংগ্রেসের সীনিয়র নেতা সুবোধকান্তের সামনে কংগ্রেসে যোগ দিলেন বিজেপির নেতারা

17 Joining
Spread the love

 

রাঁচি – কংগ্রেসের সীনিয়র নেতা সহ প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সুবোধ কান্ত বলেন যে ঝাড়খন্ডের যুবকরা

বিজেপির কাজের ধরন দেখে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন।

রাজ্যের শান্ত শিষ্ট যুবকদের মিথ্যে কথা বলে আর তাদের ভুলিয়ে রাখা যাবে না।

বিজেপি বার বার এরকম কাজ করে এসেছে। তবে আজকে তাদের দিন শেষ।

যুবকদের ভুল পথে নিয়ে যাবার বিজেপির চেষ্টা কিছুতেই সফল হবে না।

বিজেপির সরকার অন্যের ওপর জোর খাটাবার চেষ্টা করছে।

শ্রী সহায় রবিবার কংগ্রেস ভবনে আয়োজিত মিলন সমারোহে এই সব কথা বলছিলেন।

এই অনুষ্ঠানে তিনি বিজেপি নেতা রাকেশ সিংহ কে কংগ্রেসে অন্তর্ভুক্ত করেন।

দলীয় পতাকা দিয়ে স্বাগত জানান সুবোধকান্ত

অনুষ্ঠানে রাকেশের সাথে কয়েক হাজার যুবকও কংগ্রেসে যোগ দেন।

সুবোধকান্ত সহায় তাঁদের সবাইকে কংগ্রেসে যোগ দেবার জন্য ধন্যবাদ দেন।

তিনি তাঁদের কংগ্রেসের পতাকা, উত্তরীয়, ফুল মালা দিয়ে সবাইকে দলে শামিল করেন।

সুবোধকান্ত বলেন যে বিজেপি মিথ্যে কথা দিয়ে সাধারণ মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছে।

নিজেদের কাজের যে ফিরিস্তি বিজেপি দিচ্ছে সেগুলো সবই মিথ্যের ওপর ভিত্তি করে তৈরী করা হয়েছে।

সাধারণ মানুষকে ভুল বোঝানো হচ্ছে।

দেশের গরীব, মজদুর, কৃষক, যুবক সকলেই বুঝতে পেরে গেছেন যে বিজেপি সরকার কারও ভালো করতে পারে না।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রদেশ কংগ্রেস মুখপাত্র রাজীব রঞ্জন প্রসাদ বলেন যে বিজেপি দুর্নীতিতে আকন্ঠ ডুবে আছে।

দেশের সাধারণ মানুষকে এই দলের নেতাদের দুর্নীতির ফল ভুগতে হচ্ছে। রাজ্যের নতুন পরিচয় তৈরী হচ্ছে।

সাধারণ লোক এখন এই রাজ্যকে ক্ষুধাগ্রস্ত, ধার নেওয়া কৃষকদের আত্মহত্যার জন্য প্রসিদ্ধ রাজ্য বলে গন্য করছেন।

এখানে রোজগারের জন্য যুবকদের পলায়ন দিন প্রতিদিন বাড়ছে।

এছাড়া ন্যুনতম সুবিধার জন্যও লোক হাপিত্যেশ করে বসে আছে।

তিনি আরও বলেন যে গরীবদের থেকে নেওয়া করের টাকা দিয়ে বর্তমান বিজেপি সরকার শুধু নিজের প্রচার চালাচ্ছে।

সাধারণ মানুষের উন্নতির টাকা সরকারের প্রচার প্রসারে খরচ হচ্ছে।

বিজেপি শুধু দলের উন্নতির জন্য কাজ করে চলেছে, সাধারণ মানুষের জন্য নয়।

রাকেশ সিংহ বলেন যে বিজেপি শুধু ধর্মের ভিত্তিতে মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করছে।

মানুষকে ভুল বুঝিয়ে তাদের অনেক ক্ষতি করেছে।

আমরা বুঝতে পেরেছি যে শুধু কংগ্রেসের দৃষ্টিভঙ্গী মানুষকে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে।

এদিন কংগ্রেসে শামিল হন অরবিন্দ কুমার, বীরেন্দ্র খলখো, দুর্গা শর্মা, জয় প্রকাশ ভারতী, হিমাংশু কুমার,

মোহম্মদ হসন, ময়ঙ্ক কুমার শর্মা, অফতাব খান, সলমান খান, মন্টী কুমার, ধনঞ্জয় কুমার, সুভব শর্মা, বরুণ শর্মা,

সুধাংশু কুমার, দীপক কুমার সোনু, প্রশান্ত সিংহ, সদাব আলম, মোহম্মদ জাবেদ,

বিজয় কুমার, মনীষ কুমার, সৌরভ ওঢা, রবি রঞ্জন প্রমুখ।

Author: Bangla R khabar

Loading...