My title page contents Press "Enter" to skip to content

মধ্যপ্রদেশের বৈতুলে ইচ্ছাশক্তি দ্বারা জল সমস্যার সমাধান




মধ্যপ্রদেশঃ মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের বৈতুলে প্রত্যেক বছর মার্চ মাস থেকেই পানীয় জলের

বিকট সমস্যা দেখা দেয়।

এইবার এই সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য জেলা প্রশাসন এবং প্রধান নগরপালিকা আধিকারিক

অনেক রকম ভাবে চেষ্টা করেন।

তাঁদের ইচ্ছাশক্তির পরিণামও এবার সকলের সামনে এল।

প্রচণ্ড গরমে নগরপালিকার পক্ষ থেকে সব সময়ের জন্য পানীয় জলের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আধিকারিক সূত্র থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী পানীয় জলের সমস্যা থেকে নিস্তার পাবার জন্য

শহর থেকে ৫২ কিলোমিটার দূরে পারসডীহ বাঁধ থেকে তাপ্তি ব্যারেজের মাধ্যমে

জল শহর পর্যন্ত পৌঁছানো হলো।

এর জন্য প্রচণ্ড গরমেও এই শহরে পানীয় জলের সরবরাহ ঠিকঠাক ছিল।

এর সাথে সাথে পানীয় জল মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেবার জন্য প্রত্যেক বছর যেই

দু কোটি টাকা খরচ হয় সেটাও বাঁচানো সম্ভব হলো।

পারসডীহ বাঁধ থেকে তাপ্তি ব্যারেজ পর্যন্ত জল নিয়ে আসা খুব কঠিন কাজ ছিল।

কিন্তু প্রায় ২৫ বছর থেকে ধীরে ধীরে শুকিয়ে যাওয়া তাপ্তীতে পারসডীহের মত

বিশালাকায় জলাশয়ের মাধ্যমে জল দেবার ফলে শুধুমাত্র তাপ্তি নদী কে জীবন্ত করা গেলা না,

উল্টে শহরে কুড়ি হাজার নলের সংযোগ করে দিয়ে দেড় লাখ মানুষের কাছে জল পৌঁছে দেওয়া গেল।

এর ফলে প্রচন্ড গরমে জলের ব্যবস্থা করা সম্ভব হল।

প্রধান নগরপালিকা আধিকারিক প্রিয়াঙ্কা সিং বলেন যে

গ্রীষ্মকালে বৈতুল শহরে বিগত কয়েক বছর থেকে পানীয় জলের সংকট ভীষণভাবে দেখা দিচ্ছিল।

তার থেকে নিস্তার পাবার জন্য নগরপালিকার পক্ষ থেকে জল পৌঁছে দেবার জন্য

দিন রাত এক করে কাজ করা হয়েছে।

অমৃত প্রকল্পের অন্তর্গত শুধুমাত্র খেড়ীসাঁওলীগঢ়ে নির্মিত তাপ্তি নদীর উপর ব্যারেজ বানানোর কাজ

তাড়াতাড়ি শেষ করা হয়।

তার সাথে সাথে খেড়ী থেকে বৈতুল পর্যন্ত পাইপলাইন বেছানোর কাজও তৎপরতার সাথে পূর্ণ করা হয়েছে।

ফলস্বরূপ বৈতুলে বাড়ী বাড়ী জল পৌঁছানো সম্ভব হয়েছে।

এর ফলে গরমকালে মানুষের পানীয় জলের সমস্যা দূর করা গেছে।

কিছু লোক মনে করেন যে এর ফলে এই এলাকার জলের স্তরও ধীরে ধীরে বাড়ছে।




Spread the love

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Mission News Theme by Compete Themes.