পিছিযে থাকা এলাকাগুলিকে সামনের সারিতে আনতে হবে – মুখ্যমন্ত্রী

0 6
রাঁচি (সং) – মুখ্যমন্ত্রী শ্রী রঘুবর দাস বললেন ঝাড়খণ্ডের খুঁটি, সিমডেগা, গুমলা, চাইবাসা, পাকুড় এবং সাহেবগঞ্জ এই ছয়টি জেলা যা অতি পিছিযে থাকা জেলার শ্রেনীতে আসে| তাই এগুলকে উন্নয়নশীল জেলাতে পরিনত করাটাই সরকারের লক্ষ্য এবং প্রাথমিকতাতে আছে| এই জেলা সবের উন্নয়নের জন্য সবথেকে পিছিযে থাকা ব্লক এবং পঞ্চাযেছের দিকে দৃষ্টি রাখতে হবে এমনটাই বললেন তিনি|
শ্রী দাস আজ নিজের আবাসে রাজ্যের পিছিযে থাকা জেলা সবের উন্নয়ন সম্বন্ধিত বৈঠকে আধিকারিকদের দিশা নির্দেশ করছিলেন|
মুখ্যমন্ত্রী আরও বললেন এইসব অতি পিছিযে থাকা জেলার অগ্রসরের জন্য শিক্ষা, স্বনির্ভরতা, চিকিত্সা, পরিকাঠামোগত মৌলিক অধিকারের উন্নতির দিকে বিশেষ দৃষ্টি দেওযার প্রযোজন আছে| জেলাশাসক এই ব্যাপারে বিশেষ নজর দিলেই এই জেলা সবের পরিবর্তন হবে এমনটাই তাঁর মত| প্রত্যেক সপ্তাহে জেলাশাসক কোন পিছিযে থাকা গ্রামে পৌঁছে মানুষজনের সাথে কথাবার্তা বলবে| তাদের সমস্যা জেনে সেই সম্বন্ধে মতামত দেবে| সেই দিকেই দৃষ্টি রাখার কথাটিই তিনি বারে বারে বললেন| মানুষের অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে বৃদ্ধিতা এলেই ভালো পরিনাম লক্ষ্য করা যাবে|
মুখ্যমন্ত্রী শ্রী দাস নির্দেশ দেন যেখানে শিক্ষকের অভাব আছে সেখানে জেলার অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক অথবা শিক্ষিত নবযুবকদের ঘন্টা হিসাবে কন্ট্রাক্টে রেখে তাদের থেকে সেবা নিতে হবে| আর এক্ষেত্রে তিনি স্থানীয় হলে ভাষার সমস্যাও থাকবে না| শিক্ষকও স্কুলের দিকে নজর রাখবে| এই ব্যাবস্থার পরেই মানুষকে স্বনির্ভর আর রোজগারের সঙ্গে যুক্ত করতে হবেযাতে পলায়নের মত ঘটনা না ঘটে আর মানুষের আর্থিক পরিস্থিতির উন্নতি হয়|

কল্যাণকারী প্রকল্পের সাথে যোগ করুন সাধারণ মানূষকে- মুখ্যমন্ত্রী

মুখ্যমন্ত্রী জানালেন সরকারের যেসব উন্নয়নমূলক আর কল্যাণকারী প্রকল্প সব আছে সেগুলির সাথে মানুষজনকে যুক্ত করতে হবে| স্কুল সবে মিড ডে মিলে ডিম দেওযা হযে থাকে|
এইসব জেলাগুলিতে পোল্ট্রি সোসাইটির গঠন করতে হবে| আর ডিমের উত্পাদন বৃদ্ধি করতে হবে| সরকার সেইসব ডিম কিলে নেবে|
এইভাবে রেডি টু ইটের সাথেও মহিলাদের যুক্ত করা হচ্ছে| এর মাধ্যমে বড় সংখ্যাতে মানুষের কর্মসংস্থান হবে| স্কুলের জন্য যেসব ড্রেস , জুতো চটি নির্দিস্ট হবে সেইসব তৈরির প্রশিক্ষণ দিযে স্থানীয় স্তরে সেগুলি আরম্ভের কথাটিও তিনি বললেন|
এদের আর বাজার খোঁজার কোন প্রযোজন থাকবে না| তাঁর মতে পরিকাঠামোগত মৌলিক অধিকারের ক্ষেত্রে বিদু্য়ত্ পৌঁছানোর কাজটিতেও দ্রুততা আনার প্রযোজন আছে|
প্রত্যেক মাসে জেলাশাসক কাজের সমীক্ষা করবে| সৌভাগ্য প্রকল্পের অন্তর্গতে ক্যাম্প লাগিযে বিদু্য়ত্ সংযোগের ব্যাবস্থার কাজটিও করার কথা তিনি বললেন|
বিদু্য়তের সরবরাহ হলেই অর্থব্যাবস্থাতে পরিবর্তন আসবে| পানীয় জল পৌঁছানোর জন্য প্রকল্প হিসাবে কাজ করতে হবে|
তাঁর মতে আপাতত গরমের দিন বলে ট্যাঙ্কারের মাধ্যমে জল সরবরাহের দিকটিও নির্দিস্ট করতে হবে|
এছাড়া মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ দেন ২রা এপ্রিল এগারোটার সমযে এই ছয়টি জেলার জেলাশাসকেরা জেলা এবং ব্লক কো“ অর্ডিনেটরের সাথে বৈঠকের মাধ্যমে তাদের কাজগুলিকে বোঝাবেন|
তেজস্বিনী প্রকল্পের অন্তর্গতে দুটি আঙ্গনবাড়িতে যে ক্লাব তৈরি হচ্ছে সেই কাজে দ্রুততা আনার কথাও বললেন মুখ্যমন্ত্রী|
এই সমযে মুখ্য সচিব শ্রী সুধীর ত্রিপাঠি, উন্নয়ন কমিশনার শ্রী অমিত খরে সহ বিভাগের প্রধান সচিব, সচিবেরা ছয়টি জেলার জেলাশাসকেরা উপস্থিত ছিলেন|

You might also like More from author

Comments

Loading...