আবার প্রশ্নের সম্মুখীন আধার সুরক্ষা: সামনে এল আধার তৈরির ভুয়ো সফটওয়্যার

aadhar
Spread the love

 

এজেন্সী

নয়া দিল্লীঃ আবার প্রশ্নের সম্মুখীন হল আধারের সুরক্ষার বিষয়টি। এর আগেও একাধিকবার শিরোনামে এসেছে আধারের সুরক্ষা।

আবারও ইন্টারনেটে ট্রেন্ডিং এই টপিক।

এক মার্কিন সংস্থা একটি রিপোর্টে জানিয়েছে সম্প্রতি আধার নথিভুক্তকরন সফটওয়্যারের একটি প্যাচ বাজারে এসেছে।

এই প্যাচ ব্যবহার করে যে কোন জায়গায় বসে যে কোন কম্পিউটার থেকে প্রয়োজনীয় নথি ছাড়াই নতুন আধার নথিভুক্ত করা সম্ভব।

২০১০ সাল থেকে আধার নথিভুক্তকরনের জন্য বেসরকারী এজেন্টের মাধ্যমে আধার নতিভুক্তকরনের কাজ শুরু করে UIDAAI।

এই এজেন্টরা Enrolment Client Multi-Platform (ECMP) নামে একটি সফটওয়্যারের মাধ্যমে এই কাজ করে।

তবে এজেন্ট কোথায় বসে এই কাজ করছে তা GPS এর মাধ্যমে জানতে পারে UIDAI।

এছাড়াও লগ ইন করার সময় এজেন্টের নিজের ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার বাধ্যতামূলক।

নতুন এই প্যাচ ব্যবহার করে GPS বন্ধ করে ECMP সফটওয়্যার ব্যবহার করা যাচ্ছে। হাফপোস্টে এক রিপোর্টে এই দাবি করা হয়েছে।

এছাড়াও কোন ফিঙ্গারপ্রিন্ট অথেন্টিকেশন ছাড়াই কম্পিউটার থেকে Enrolment Client Multi-Platform (ECMP)  সফট্ওয়্যারে লগ ইন করা যাচ্ছে।

আগে একসাথে একটি কম্পিউটার থেকে এই কাজ করতে পারলেও এবার এই প্যাচ ব্যবহার করে যত খুশি

কম্পিউটার থেকে আধার নতিভুক্তকরনের কাজ করছে এই এজেন্টরা।

GPS বন্ধ করে রাখার ফলে বিশ্বের যে কোন প্রান্তে বসে এই কাজ করা যাচ্ছে।

নতুন আধার নথিভুক্তিকরন

এছাড়াও আধার নথিভুক্তকরনের সময় নাগরিকের আঙ্গুলের ছাপ ও চোখের মনির ছবি তোলা বাধ্যতামূলক।

এই প্যাচ ব্যবহার করে তা না করেই নতুন আধার নথিভুক্ত করা যাচ্ছে।

মাত্র ২৫০০ টাকায় এই প্যাচ কিনছেন আধার নতিভুক্তকারী এজেন্টরা।

এরপরে ১০০ থেকে ৫০০ টাকার বিনিময়ে নতুন আধার নথিভুক্ত করার কাজ শুরু হচ্ছে।

এইভাবে ইতিমধ্যেই দেশের অনেক আধার এজেন্টরা অনেক টাকা রোজগার করেছেন বলে মনে করা হচ্ছে।

ক্লাউড সার্ভিসের পরিবর্তে ইনস্টল্ড সফটওয়্যার দিয়ে নতুন আধার নতিভুক্তকরনের কাজ করার জন্যই

সুরক্ষার সাথে আপোশ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

তবে এই প্যাচের মাধ্যমে শুধু নতুন তথ্য আধারিত ডাটাবেস ই ঢোকানো সম্ভব।

পুরোন আধার ডাটাবেস থেকে তথ্য বার করে নেওয়ার খবর এখনও পাওয়া যায়নি।

তাই আপাতত ডাটাবেসে সুরক্ষিত আপনার ব্যক্তিগত আধার তথ্য।

 

 

Author: Bangla R khabar

Loading...