সচিন তেন্ডুলকার চেষ্টা করেও দিতে পারলেন না রাজ্যসভায় ভাষণ

সচিন তেন্ডুলকার
Spread the love
নযা দিল্লি (এজেন্সী) – সচিন তেন্ডুলকার শেষ অব্দি ভাষণ দিতে পারলেন না। রাজ্যসভায় প্রথম বার কথা বলতে উঠেছিলেন তিনি। বিরোধিদের তুমুল হট্টগোলে দশ মিনিট দাড়িয়ে থাকার পর তিনি বসে পড়েন। বিরোধীদের হট্টগোলের জেরে পণ্ড হযে গেল রাজ্যসভায সচিন তেণ্ডুলকরের প্রথম ভাষণ| সভার শুরুতেই টুজি কেলেঙ্কারির রায নিযে হট্টগোল শুরু করেন বিরোধী সাংসদরা| শুক্রবার বেলা ১১টা পর্যনযন্ত মুলতুবি করে দেওযা হয রাজ্যসভা|
সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, খেলার অধিকার এবং ভারতে খেলার ভবিষ্যত নিযে বলার কথা ছিল সচিনের| সচিন বিষযটি নিযে বলার জন্য রাজ্যসভার সেক্রেটারি জেনারেলের কাছে নোটিশও দিযেিলেন|
নিযম অনুযাযী দুই সাংসদের সমর্থনের কথা থাকায বিজেপি এমপি রণবিজয সিং জুদেব এবং কংগ্রেসের পিএল পুনিযা প্রাক্তন এই ক্রিকেটারকে সমর্থনও করেন| দেশে স্পোর্টস এডুকেশন অবস্থা এবং সুবিধা নিযে বলার কথা ছিল সচিনের| বলার সময ছিল বেলা ২ টো নাগাদ|
সচিন তেণ্ডুলকর বলার জন্য উঠে দাঁড়াতেই মনমোহন সিংকে নিযে করা মন্তব্যের জন্য নরেন্দ্র মোদীকে ক্ষমা চাইতে হবে বলে দাবি জানাতে থাকেন|

সচিন তেন্ডুলকার দাড়িয়ে ছিলেন প্রায় দশ মিনিট

একইভাবে প্রায ১০ মিনিট দাঁড়িযে থাকেন সচিন| এই সময কংগ্রেস সদস্যরা স্লোগান দিতে থাকেন| চেযারম্যান বেঙ্কাইযা নাইডুর আবেদনেও কর্ণপাত করেননি বিরোধী কংগ্রেস সাংসদরা| এদিকে, এদিন সচিনের ভাষণের সময রাজ্যসভার অধিবেশন পণ্ড হযে যাওযায ক্ষিপ্ত রাজ্যসভার অপর সাংসদ তথা অভিনেত্রী জযা বচ্চন| তিনি বলেন, বিশ্বের কাছে ভারতের নাম উজ্জ্বল করেছে সচিন|
সেইরকম একজন ব্যক্তিত্বকে বলতে দেওযা হল না বলে, ঘটনার কড়া সমালোচনা করেন জযা বচ্চন| কেবলমাত্র রাজনীতিকদের বলার অধিকার আছে কিনা, তা নিযে প্রশ্ন তোলেন এই সাংসদ|
পাঁচ বছরের মধ্যে এই প্রথমবার বিতর্কে অংশ নিতে যাচ্ছিলেন সচিন| ২০১২ সালে সচিন তেন্ডুলকর রাজ্যসভায মনোনীত সদস্য হিসেবে সুযোগ পান| সেই থেকে সংসদে তাঁর উপস্থিতির হার ৮ শতাংশের মতো| বিষযটি নিযে সচিন তেণ্ডুলকরের সমালোচনাও হযেছে।
এদিনের অধিবেশন যে পণ্ড হতে যাচ্ছে তার ইঙ্গিত ছিল আগে থেকেই| কংগ্রেস আগেই জানিযেিল, গুজরাতের নির্বাচনী প্রচারে মনমোহন সিংকে নিযে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর করা বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাবেন তাঁরা| তবে সংসদ বসার আগেই চলে আসে নতুন ইসু্য| টুজি কেলেঙ্কারি নিযে আদালত সব অভিযুক্তকে মুক্ত করে দেয| মনমোহন সিং সরকারের সময ওঠা সেই অভিযোগ থেকে সিবিআই আদালত মুক্ত করে দেওযা হই হট্টগোল শুরু করেন কংগ্রেস সাংসদরা।

Originally posted 2017-12-22 15:14:17.

Loading...