সখী মন্ডল আংগনবাড়ীর বাচ্চা ও মহিলাদের খাদ্য সরবরাহ করবে – মুখ্যমন্ত্রী

0 15
রাঁচি (সং) – মুখ্যমন্ত্রী শ্রী রঘুবর দাস বললেন ঝাড়খণ্ড রাজ্যে অপুষ্ঠি একটি বড় সমস্যা| এটিকে সমাপ্ত করাটাই সরকারের একমাত্র লক্ষ্য| আর এরজন্য সরকারের খাজানার কোন চিন্তা নেই| আমাদের আগামী প্রজন্ম সুস্থ থাকলেই এই রাজ্যের সমৃদ্ধ ফিরে আসবে|
এই কথাগুলি টি ডি০ আর০ডি০ অ০ এর ডিফেন্স ফুড রিসার্চ ল্যাব এবং সি০ এফ০টি০ আর০ আই০ এর আধিকেরা জানালেন|
তাঁরা রেডি টু ইট প্রকল্পের সম্বন্ধে আলোচনা করছিলেন| তিনি জানালেন ডি০এফ০ আর০ এল০ সখী মন্ডলকে মেশিন আর প্রশিক্ষণ দেবে|
সখী মন্ডলের মাধ্যমে সরকারের থেকে আঙ্গনবাড়িতে বাচ্চাদের আর গ্রামের মহিলাদেরকে পৌষ্টিক আহার উপলব্ধ করাবে|
গুনমানের ক্ষেত্রে কোনোপ্রকারের অভাব যাতে না থাকে, বাচ্চাদের ও মহিলাদেরকে সম্পুর্ন আহার যাতে উপলব্ধ হয় তার দেখাশোনার ভার মুখ্যমন্ত্রী উদ্যমী বোর্ডের থাকবে|
প্রত্যেক জেলাতে একটি করে মেশিন থাকবে যেখানে আহার তৈরি হবে| মহিলা সমুহ এসবকে ট্রান্সপোর্টের মাধ্যমে আঙ্গনবাড়ি অবধি নিযে যাবে|
এরজন্য মুদ্রা লোন অথবা স্ট্যন্ড আপ ইন্ডিযার মাধ্যমে লোণের সুবিধা মিলবে| এরফলে অধিক সংখ্যাতে মহিলারা উযার্জনের সুবিধা পাবে| রাজ্য থেকে অপুষ্টি এবং রোজগার সম্বন্ধীয় সমস্যা চিরতরে ঘুচে যাবে|
রাজ্যতে মুখ্য ভাবে আয়রন, প্রোটিন এসবের অভাব আছে অপুষ্টির ক্ষেত্রে| যে আহার প্রস্তুত হবে সেক্ষেত্রে মাত্রা পুষ্ঠির সমুচিত রাখার দিকে দৃষ্টি রাখতে হবে| সপ্তাহে সাত দিন আলাদা ধরনের আহারের ব্যাবস্থা রাখতে হবে যাতে বাচ্চাদের রুচি ফিরে আসে| বাচ্চাদের চকলেট বেস পছন্দ তাই এমন ধরনের চকলেট তৈরি করতে হবে যাতে প্রোটিণে ভরা থাকে|
মুখ্যমন্ত্রী বললেন ঝাড়খণ্ডে অনেক বেশী সংখ্যাতে বনের উত্পাদন হযে থাকে| এখানে টমাটর, তেঁতুল, মটর এসবও অনেক বেশী সংখ্যাতে উত্পাদিত হয়| ডি০ এফ০ আর০ এল দ্বারা প্রস্তুত বিভিন্ন ধরনের মেশিন সব সরকার সখী মন্ডলকে উপলব্ধ করিযে তাঁদের স্বনির্ভরে পরিনত করবে|
ছোট ছোট একক তৈরি করে মানুষ টমাটর ক্যাচাপ, জ্যাম এসব প্রস্তুত করে স্থানীয় বাজারে বিক্রি করতে পারবে| এরজন্য ফুড প্রোসেসিং ইউনিট লাগাবার প্রযোজন নেই| ঝাড়খণ্ডের পয়সা বাইরে যাবে না| আর মানুষ তাজা তাজা উত্পাদন উপলব্ধ করবে|
বৈঠকে সি০এফ০ আর০ এল০ পৌষ্ঠিক আহার প্রস্তুতের জানকারী দেয়| মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ রাজ্যের আধিকাস্রিক এবং সি০এফ০ টি০ আর০ আই০ এর আধিকারিক ১০ দিনে একটি ধাঁচা প্রস্তুত করবে|
এপ্রিল থেকেই বাস্তবাযিত হবে কাজের| আঙ্গনবাড়ি সেবিকাদের মাযে ভুমিকা পালন করতে হবে তাহলেই বাচ্চারা ভালো সংস্কার পাবে| বৈঠকে মুখ্য সচিব শ্রী সুধীর ত্রিপাঠি, অর্থ বিভাগের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব শ্রী সুখদেব সিংহ, গ্রামান্নোয়ন বিভাগের প্রধান সচিব শ্রী অবিনাশ কুমার, শিল্প সচিব শ্রী সুনীল কুমার বর্নবাল, সমাজ কল্যান বিভাগের সচিব শ্রী বিনয় চৌবে, সহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন|

You might also like More from author

Comments

Loading...