রাজ্যের এক লক্ষ যুবাকে  দক্ষতা উন্নয়নের মাধ্যমে রোজগার দেওযা হবে

0 6

রাঁচি (সং) –  দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমের সরকার যূবা বর্গকে রোজগার দেবে। মুখ্যমন্ত্রী শ্রী রঘুবর দাস বললেন রাজ্য সরকার এই বর্ষে দক্ষতা উন্নয়নের মাধ্যমে এক লক্ষ যুবকের জন্য উপার্জনের পথটি খুলবে আর রাজ্যের পিছিযে থাকা ছয়টি জেলার দিকে বিশেষ নজর রাখবে|

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ এইসব পিছিযে থাকা জেলাগুলিতে দক্ষতা উন্নয়ন কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে শীঘ্রই কোর্স আরম্ভ করা হবে|

আই টি আই, পলিটেকনিক এবং ইঞ্জিনিযারিং কলেজ থেকে প্লেসপেন্টের গ্যারান্টি দিতে হবে যাতে ছাত্রদের মধ্যে উত্সাহ জাগে|

নিজস্ব আই টি আই, পলিটেকনিক এবং ইঞ্জিনিযারিং কলেজে যারা কোর্স করছে সেসব ছাত্রদেরও সরকার সাবসিডি দেবে|

এই নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রী শ্রী রঘুবর দাস ঝাড়খণ্ড মন্ত্রকে ঝাড়খণ্ড কৌশল বিকাশ মিশন  সোসাইটির তৃতীয় বৈঠকে দেন|

তিনি জানালেন সবথেকে গুরুত্বপুর্ন মানব সম্পদ| সরকার এক্ষেত্রেই বিনিযোগ করছে|

তাদেরকে প্রশিক্ষিত করে নিযে কর্মসংস্থানের ব্যাবস্থার মাধ্যমে জীবনধারাতে গুনমানের সঞ্চার হবে|

ফলে আগামী ঝাড়খণ্ড রাজ্য  আরও সমৃদ্ধশালীতে পরিনত হবে|

রাজ্যের অতি পিছিযে থাকা জেলা সবে কৌশল বিকাশ কেন্দ্র আদিবাসী অধু্য়ষিত অঞ্চলে খোলা হবে|

মুখ্যমন্ত্রী এও বললেন রাজ্যের অতি পিছিযে থাকা জেলাগুলিতে দক্ষতা উন্নয়ন কেন্দ্র আদিবাসী অধু্য়ষিত অঞ্চলেই খোলা হবে| এখানে আবাসের ব্যাবস্থা থাকবে|

একটি বেঞ্চ একশো  জন ছেলের জন্য আর একশো জন মেযে জন্য থাকবে|

রোজগার সৃষ্টি করতে খালি সরকারী ভবনে কৌশল বিকাশ কেন্দ্র খোলা হবে

এক বর্ষের মধ্যে এক হাজার ছাত্র ছাত্রীকে প্রশিক্ষিত করে নিযে কর্মসংস্থানের ব্যাবস্থা করা হবে| সারা রাজ্যতে এমন সব সরকারী ভবন আছে যার কোন ব্যাবহার নেই সেখানে কৌশল বিকাশ কেন্দ্র খোলা হবে| ছাত্ররা যাতে শীঘ্রই রোজগার পায় তারজন্য শিল্পের চাহিদা হিসাবে কোর্স করানো হবে| রাজ্য সরকারের দিক থেকে নার্সের য়থেষ্ট প্রযোজন আছে| নার্সিংকে প্রাধান্য দেওযার প্রযোজন আছে| এ০এন০এম০কে হেলথের সাথে যুক্ত করে প্রশিক্ষণের কথাটি তিনি বলেন| এছাড়া এ্যাম্বুলেন্সে ড্রাইভারকে তত্কাল সাহায্য করার বিষযে প্রশিক্ষণের ব্যাবস্থা করতে হবে| পাকুড়ে নার্সিং কলেজ খোলার প্রযোজন আছে| এছাড়া টেক্সটাইল ক্ষেত্রেও রোজকারের য়থেষ্ট সুযোগ আছে| রাজ্যতে অনেক বড় বড় কোম্পানি নিজেদের কারখানা লাগাচ্ছে| তাই টেক্সটাইলের প্রশিক্ষণের কথা তিনি বললেন|

তাঁর মতে মেযোও পড়াশুনাতে য়থেষ্ট উত্সুক আছে, তাই সেদিকটিকেও প্রাধান্য দিতে হবে|

এই বর্ষে ১৫ ই জুলাই ওযার্ল্ড ইউথ স্কিল ডে এই দিন থেকে কর্মসংস্থান দেওযার কাজটি আরম্ভ হবে| বছরের শেষ অবধি এক লক্ষ মানুষকে রোজগার দেওযা হবে| বৈঠকে বিভাগের সচিব শ্রী অজয় কুমার সিংহ জানালো স্কিল ইউনিভার্সিটির জন্য বর্ষার অধিবেশন বিল দেওযা হবে| ছয়শ জন এ০এন০এম০কে প্রশিক্ষিত করা হচ্ছে|  গত বর্ষ কৌশল বিভাগ ১.০২ লক্ষের  অধিক মানুষজনকে প্রশিক্ষিত করেছে| পশ্চিম সিংভুম সারা দেশেতে স্কিল ডেভেলাপমেন্টের দিক থেকে প্রথম স্থানে আছে| অন্যদিকে লোহারদাগা সপ্তম তম স্থানে আছে| কলেজ, পলিটেকনিক, আই টি আই এবং ইঞ্জিনিযারিং কলেজ সবে প্লেসমেন্টকে প্রাধান্য দেওযার জন্য বিভিন্ন এজেন্সিদের সাথে চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে|

বৈঠকে মুখ্য সচিব শ্রী সুধীর ত্রিপাঠি, স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান সচিব শ্রীমতী নিধি খরে, শিল্প সচিব শ্রী সুনীল কুমার বর্নবাল, গ্রামান্নোয়ন বিভাগের প্রধান সচিব শ্রী অবিনাশ কুমার কল্যান বিভাগের সচিব শ্রীমতী হিমানী পান্ডে, শিল্প সচিব শ্রী কে০ রবিকুমার ছাড়াও অন্যান্য আধিকারিকেরা উপস্থিত ছিলেন|

You might also like More from author

Comments

Loading...