Press "Enter" to skip to content

রাজ্যপাল দ্রৌপদি মুর্মূ শরত্চন্দ্রের উপন্যাসের অনুবাদ ‘আদিম মুন্ডা ও তাঁদের প্রদেশ’ বিমোচন করলেন

Spread the love



রাঁচি (সং) – মাননীযা রাজ্যপাল শ্রীমতী দ্রৌপদী মুর্মু আজ স্বর্গত শরত চন্দ্র রাযে প্রসিদ্ধ কৃতি দা মুন্ডাজ অ্যান্ড দেযর কান্ট্রির শ্রী সহাযে দ্বারা হিন্দী অনুবাদিত পুস্তক ‘আদিম মুন্ডা এবং তাঁর প্রদেশ এটির বিমোচন করেন|
মাননীযা রাজ্যপাল এই অবসরে বললেন ঝাড়খণ্ডের আদিবাসীদের সভ্যতা এবং সংস্কৃতি বহু প্রাচীন কালের| স্বর্গত শরত চন্দ্র রায আদিবাসী সমাজের মধ্যে পৌঁছে তাদের জীবনযাত্রার পরম্পরা সব এবং সংস্কৃতির অধ্যযন করে দা মুন্ডাজ অ্যান্ড দেযর কান্ট্রি র যা শুধুমাত্র ইংরেজি ভাষাতেই উপলব্ধ ছিল এবং হিন্দী অনুবাদ এখনও অবধি উপলব্ধ হযনি |শ্রী সহায সেই অভাবটি দূর করলেন|
এই পুস্তকটি অধ্যযন করলে মানুষ মুন্ডা সংস্কৃতি সম্বন্ধে আরও ভালো করে জানতে পারবে| বিদ্যালয এবং মহাবিদ্যালযে ছাত্রদের এই পুস্তকটি পড়া উচিত্| আদিবাসী সমাজে পন প্রথা নেই বা ছেলে মেযেছের মধ্যে কোন তফাত নেই| তারা খুবই সহজ শরণ মানুষ হযে থাকে|
আজকের এই সভ্য সমাজে এর মাধ্যমে তারা অনেক ভালো জিনিষ শিখতে পারবে| এই অবসরে উপস্থিত পুর্ব মুখ্যমন্ত্রী শ্রী অর্জুন মুন্ডা বললেন স্বর্গত শরত চন্দ্র রায ওঁরাও, বিরহোর, খড়িযা, ভুঁইযাদের সম্বন্ধেও প্রসিদ্ধ পুস্তক রচনা করেন|
তিনি অমর মানবশাস্ত্রী স্বর্গত রাযকে শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করেন আর বলেন তাঁর মাধ্যমেই মানুষ এইস সমাজ সম্বন্ধে অনেক কিছু জানছেন| তিনি বললেন হিন্দী আমাদের মাতৃভাষা এবং রাষ্ট্রভাষা হচ্ছে| তাই এই ভাষাতে এমন অমর কৃতিত্ব উপলব্ধ প্রাপ্ত যা যথেষ্ট অনুভবেরই বিষয॥পুস্তকের প্রকাশন সমাজসেবী সংস্থা আদিবাসী ওযেফেযার সোসাইটি, জামশেদপুরের দ্বারা সম্পাদিত হযেছে|
এই অবসরে শ্রী রাজ সহায জানালেন পুস্তকের হিন্দী সংস্করন ইংরেজি সংস্করনের তুলনায অধিক সংখ্যাতে উপজাতীয সম্প্রদাযে মানুষের মধ্যে সাড়া জাগাবে| এছাড়া ঝাড়খণ্ডের একটি বড় সংখ্যায মানুষজন তাদের গৌরবমণ্ডিত ইতিহাসের দিক থেকেও লাভে থাকবে|
শ্রী সহায জানালেন স্বর্গত রায দা মুন্ডাজ অ্যান্ড দেযর কান্ট্রি যা বর্ষ ১৯১২ তে প্রকাশিত হয| স্বর্গত রায পেশায একজন উকিল ছিলেন| তিনি আদিবাসীদের পক্ষে বিচারালযেছে পক্ষপাতিত্ব রাযে জন্য আদিবাসী সমাজ সম্বন্ধে গভীরভাবে অধ্যযন করে এই কৃতি রচনা করেন|
এখানে ঝাড়খণ্ডের বিধানসভার অধ্যক্ষ প্রফেসর দিনেশ ওঁরাও, মাননীযা শিক্ষা মন্ত্রী শ্রীমতী নীরা যাদব, কল্যান মন্ত্রী শ্রীমতী লুইস মারান্ডি, পুর্ব মুখ্যমন্ত্রী অর্জুন মুন্ডা, বিধাযিকা গঙ্গোত্রী কুজুর, ঝাড়খণ্ডের পুর্ব বিচারক উচ্চ বিচারালযে শ্রীমতী জযা রায, প্রধান সচিব এস০ কে০ শতপতি, রাঁচি বিস্ববিদ্যালযে আচার্যর শ্রী রমেশ কুমার পান্ডে, পদ্মশ্রী অশোক ভগত ছাড়াও অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন|

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.