মুসলমানদের বাড়ির দেওযালে লাল কাটা চিহ্ন, সাফাইযে কী বলল আহমেদাবাদ পুরসভা

মুসলমানদের
আহমেদাবাদ (এজেন্সী) . দু’দিন আগেই নযা বিতর্ক শুরু হয নরেন্দ্র মোদীর রাজ্যে| অভিযোগ।
আহমেদাবাদের মুসলমান সম্প্রদাযে বাড়ির বাইরের দেওযালে ‘এক্স’ বা কাটা চিহ্ন এঁকে গিযেে অজ্ঞাতপরিচয ব্যক্তিরা|
সঙ্গে নানা পোস্টারে কটূক্তিও লিখে রাখা হযেে| যা নিযে হইচই পড়ে গিযেে|
২০০২ সালের দাঙ্গার পর ১৫ বছর কেটে গেলেও সেই স্মৃতি অনেকের মনেই এখনও তরতাজা| তাই সিঁদুরে মেঘ দেখেই অনেকে আঁতকে উঠেছিলেন|

মুসমানদের ভয় পুরোনো অনুভব থেকে

ফের সেই ভযানক স্মৃতি ফিরে আসবে না তো, মুসলমান পরিবারের অনেকেই সেই প্রমাদ গুণছিলেন|
সেই ভযে অনেকে নির্বাচন কমিশনে, পুলিশ কমিশনারের কাছে নালিশ পর্য্ন্ত জানান|
তবে কেন কিছু বাড়ির দেওযালে কাটা চিহ্ন বা এক্স চিহ্ন লাগানো হযেে তা নিযে সাফাই দিযেে আহমেদাবাদ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন|
জানিযেে, মযলা তোলার পিকআপ পযে্ট হিসাবে ওই কাটা চিহ্নগুলি বাড়ির দেওযালে এঁকে দিযেেন পুরকর্মীরাই|

ময়লা তোলার জন্য ব্যবস্থা

পুরসভার যুক্তি, মযলা পরিষ্কারে জিপিএসের সাহায্য নেওযা হচ্ছে|
ওই পযে্টগুলিকে চিহ্নিত করা হযেে| সেখানে মযলা তোলা হল কিনা তা জিপিএসের মাধ্যমে পর্যেবেক্ষণ করা হবে|
তবে যেহেতু যারা মযলা তুলবেন তারা ততোধিক শিক্ষিত নন, সেহেতু তাদের সুবিধার জন্য এক্স চিহ্ন আঁকা হযেে বেশ কযেটি বাড়ি দেওযালে|
সারা আহমেদাবাদে এমন ৪৮৪টি মযলা পিক আপ পযে্ট তৈরি করা হযেে|
১৪টি গাড়ি মযলা তুলবে| ফলে মুসলমানদের ভয পাওযার কোনও কারণ নেই বলেই আশ্বস্ত করা হযেে|
বিতর্ক কানে আসার পরে লাল কাটা চিহ্ন সরিযে ফেলা হযেে বলে জানা গিযেে|

ভাল খবর

মাঠে ঘাটে এখনও ছড়িযে আছে দুঃখ

ভারতে আট রাজ্যে হিন্দুদের সংখ্যালঘু ঘোষণার দাবি খারিজ

Please follow and like us:
Loading...