মমতার ভাবনায নতুন আশা রাজ্যের স্কুলপাঠ্যে বাধ্যতামূলক গরবের বাংলা ভাষা

0 107
কলকাতা (এজেন্সী) – মমতার চেষ্টায় বাংলা ভাষা আবার নিজের সম্মান পেতে পারে। মাতৃভাষার সম্মান সবার আগে| তাই মা“মাটি“মানুষের সরকারের সৌজন্যে রাজ্যের সমস্ত স্কুলে বাংলা ভাষাকে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে| বাঙালি হযে বাংলা পড়বেন না, সেদিন শেষ হতে চলেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যাযে উদ্যোগে|
সকল বাঙালিকে বাংলা পড়তেই হবে| সরকারি, সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত বা বেসরকারি স্কুলে পাঠ্যক্রমেও তাই বাংলা আবশ্যিক| প্রথম শ্রেণি থেকেই এই বিধি চালু করার কথা জানিযে দিয়েছে রাজ্যের তৃণমূল সরকার| ২০১৭“য বাংলা ভাষা পাঠ্যে বাধ্যতামূলক করা এক যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত হিসেব গণ্য হয়েছে|
মাতৃভাষা বাংলা হোক অবশ্য পাঠ্য প্রথম, দ্বিতীয ও তৃতীয ভাষা হিসেবে যেকোনও ভাষা চযনের অধিকার থাকছে পড়ুযার হাতে| তবে তার মধ্যে যেকোনও ভাষা হিসেবে রাখতে হবে বাংলাকে| শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায ঘোষণা করেন, আসন্ন শিক্ষাবর্ষ থেকেই এই নিযম কার্য কর হচ্ছে|

মমতার কথায় শিক্ষামন্ত্রীর সায়

তাঁর কথায, আমরা মাতৃভাষার প্রতি শ্রদ্ধাশীল| প্রতি ছাত্ররই তাঁর মাতৃভাষার প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকা উচিত| সবার আগে মাতৃভাষা| তারপর অন্য কোনও ভাষা| এটাই ধারা হওযা উচিত| আমদের সবার উচিত মাতৃভাষা পড়া|
মোদের গরব মোদের আশা…- সরকার বিশ্বাস করে, প্রতিটি ছাত্রই মাতৃভাষার প্রতি আবেগকে সর্বাগ্রে গুরুত্ব দেবে| তারপর তো প্রত্যেক ছাত্রের কাছেই অন্য ভাষা চযনের অধিকার থাকছে|
শুধু বাধ্যতামূলক হচ্ছে তিন ভাষার মধ্যে যেন বাংলা অবশ্যই থাকে| এটা সকলের মেনে নেওযা উচিত| কারণ আমাদের কাছে মাতৃভাষার স্থান সবার আগে| আমাদের সকলের কাছেই বাংলা ভাষা হল মোদের গরব, মোদের আশা| সেই গর্ব আর আশাই তো বাংলা ভাষা|
ইংরেজি মাধ্যমেও বাংলা আবশ্যিক – প্রথম থেকে দশম শ্রেণি পর্য‌ন্ত সমস্ত পাঠ্যক্রমেই বাংলা থাকছে| এমনকী রাজ্যের বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলির ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য এই নিযম| মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যাযে ইচ্ছানুসারেই বাংলা ভাষা আবশ্যিক করার উদ্যোগ নেওযা হয়েছে|
সরকারের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিযেেন শিক্ষাবিদরা| যেহেতু প্রত্যেক পড়ুযারই তিনটি ভাষা চযনের অধিকার থাকে, সেখাবে ইংরেজি মাধ্যম হলেও বাঙালি হিসেবে তিনটির মধ্যে একটা স্থান বাংলাকে দেওযা যেতেই পারে, কারও বাংলা ভাষা গ্রহণ করতে অসুবিধা থাকারই কথা নয|

বাংলায গুরুত্ব পায না বাংলা ভাষাই

তামিলনাড়ু, কেরালা, কর্ণাটকে মাতৃভাষা তথা ওই রাজ্যের আঞ্চলিক ভাষা যেভাবে গুরুত্ব পায, পশ্চিমবঙ্গে সে অর্থে বাংলা ভাষা তত গুরুত্ব পায না| তাই বাংলা ভাষার মানোন্নযন জরুরি| আর বাংলা ভাষার মান বাড়াতেই রাজ্য সরকারে এই উদ্যোগ| এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিযেেন প্রায সকল শিক্ষাবিদই| অধিকাংশ শিক্ষাবিদেরই মত, বাংলা ভাষার এই মর্যা দা অনেক আগেই প্রাপ্য ছিল| কিন্তু এইভাবে কেউ ভাবেনি|

মমতার ভাবনা সাধুবাদযোগ্য

বাংলা ভাষা আবশ্যিক করার যে ভাবনা রাজ্যের সরকার নিযেে, তা সাধুবাদযোগ্য| বাংলার জন্য এই ভাবনা, বাংলা ভাষার জন্য এই ভাবনা খুব ভালো পদক্ষেপ| প্রথম শ্রেণি থেকে বাংলা পড়া আবশ্যক হোক| অনেকে ভাবে স্কুলে বাংলা পড়ানো মানে পড়ুযারা ইংরেজি শিখতে পারবে না| তা একেবারেই ভুল| শিক্ষাবিদ নৃসিংপ্রসাদ ভাদুড়ি বলেন, বাংলা মাধ্যমে পড়াশোনা করে আমরা যাঁরা বড় হয়েছি কোনও ইংরেজি মাধ্যমের পড়ুযার থেকে কম ইংরেজি জানি বলে মনে হয না|
বিশ্বের দরবারে সেরা বাংলা ভাষা
বাংলা ভাষা শুধু বাংলার মাতৃভাষা নয, এই ভাষা দেশের দ্বিতীয তথা বিশ্বের চতুর্থ সর্বাধিক প্রচলিত ভাষা| বিশ্বের মোট ৩০ কোটি মানুষ এই ভাষায কথা বলেন| এই বাংলা ভাষা যেমন বাংলাদেশের প্রধান জাতীয সরকারি ভাষা, তেমনই ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, ত্রিপুরা রাজ্যের প্রধান সরকারি ভাষা| ভারতের সাংবাধানিক ২৩টি ভাষার মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে রযেে এই বাংলাভাষা|
এমনকী সাগর পেরিযে আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের প্রধান ভাষার স্থান দখল করে রয়েছে বাংলা| এছাড়া ঝাড়খণ্ড রাজ্যের দ্বিতীয সরকারি ভাষা হল বাংলা| পাকিস্তানের করাচি শহরেও বাংলা ভাষা দ্বিতীয সরকারি ভাষা বলে স্বীকৃত| শুধু তাই নয, সিযো, লিওনের সরকারি ভাষাও বাংলা| লন্ডনের দ্বিতীয বৃহত্তম ভাষা হল বাংলা| বিশ্বের এই একটি মাত্র ভাষাতেই তিন দেশের জাতীয সঙ্গীত রচিত হয়েছে| ভারত, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার জাতীয সঙ্গীত বাংলা ভাষায রচিত| ভারতের জাতীয স্ত্রোত্রও এই ভাষায লেখা হয়েছে|

You might also like More from author

Comments

Loading...