ভারতে মুসলিমদের সংখ্যা বৃদ্ধি দেশের জন্য বিপদ – গিরিরাজ সিংহর দাবি

0 84
নযা দিল্লি (এজেন্সী) । ভারতের কেন্দ্রীয মন্ত্রী গিরিরাজ সিং দেশে মুসলিমদের জনসংখ্যা বৃদ্ধিকে বিপদ বলে অভিহিত করেছেন|

তার দাবি, উত্তরপ্রদেশ, অসম, পশ্চিমবঙ্গ ও কেরালার ৫৪ জেলায হিন্দুরা সংখ্যালঘু| জনঘনত্বের ওই পরিবর্তন দেশের একতা ও অখণ্ডতার পক্ষে বিপদ|

যেসব জাযগায হিন্দুদের সংখ্যা কমেছে, সেখানেই সামাজিক ঐক্যের ক্ষয হযেে, এবং জাতীযতাবাদ সঙ্কটে পড়েছে|
গিরিরাজ সিংযে দাবি, দেশে যতদিন হিন্দুরা সংখ্যাগুরু থাকবে গণতন্ত্র ততদিনই সুরক্ষিত| কিন্তু হিন্দুদের সংখ্যা কমতে থাকলে তা গণতন্ত্রের পক্ষে বিপদ|
তিনি রাম মন্দির প্রসঙ্গে শিযা, সুন্নী ও হিন্দুদের ‘রামের বংশধর’ বলেও বিতর্কিত মন্তব্য করেন|
এ নিযে প্রতিক্রিযা ব্যক্ত করে  শুক্রবার অল ইন্ডিযা সুন্নাতুল
জামাযাতের সাধারণ সম্পাদক মুফতি আব্দুল মাতীন রেডিও
তেহরানকে বলেন, ‘যেসব ভারত বিরোধীচক্র ভারতের শান্তি
ও সম্প্রীতি নষ্ট করতে চাচ্ছে গিরিরাজ সম্ভবত সেই ষড়যন্ত্রে
পা দিযে এ ধরণের মন্তব্য করেছেন|
ভারতে মুসলিম জনসংখ্যাবৃদ্ধি আসলে দেশের জন্য কল্যাণকর|
কোন সম্প্রদাযে বৃদ্ধি কমছে বা বাড়ছে এটা বড় কথা নয,
মানুষকে দেশপ্রেমী করা যাচ্ছে কী না সেটিই আসল বিষয|
যদি দেশপ্রেমী করা যায তাহলে নিশ্চয দেশের জন্য তা কল্যাণ|’
মুসলিম জনসংখ্যা বৃদ্ধি দেশের জন্য হুমকি দাবি করে কেন্দ্রীয
মন্ত্রী গিরিরাজ সিং যে মন্তব্য করেছেন সে প্রসঙ্গে মুফতি আব্দুল
মাতীন বলেন, ‘উনি যেরকম মুখস্থ মন্তব্য বলে যাচ্ছেন তাতে
নেপথ্যে থেকে কার‌্যত দেশবিরোধী তত্পরতায উত্সাহিত করা হচ্ছে|
এদের যদি দেশের ‘প্রথম শ্রেণির নাগরিক’ ভাবা না হয তাহলে তারা দেশবিরোধী তত্পরতায লিপ্ত হতে পারে|
সুতরাং (গিরিরাজের) এ ধরণের মন্তব্য দেশের জন্য বড়  হুমকি|’
মুফতি আব্দুল মাতীন বলেন, ‘আমরা আদমের বংশধর  রামের বংশধর  নই| রাম বলে কোনো চরিত্র ভারতে জন্ম নিযেেন এমন কোনো ঐতিহাসিক তথ্য প্রমাণ নেই| এমনকী অনেক হিন্দু ঐতিহাসিকরাও তা বলেছেন বলে মুফতি আব্দুল মাতীন বলেন|
এছাড়া, এ প্রসঙ্গে ‘ওযেফেযার পার্টি অব ইন্ডিযা’র পশ্চিমবঙ্গের সম্পাদক সারওযার হাসান রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘বর্তমান কেন্দ্রীয সরকার ক্ষমতায আসার আগে মানুষকে যে প্রতিশ্রুতি দিযেিল তা পালন করতে পারেনি|
এজন্য জনগণ কেন্দ্রীয বিজেপি সরকার থেকে মুখ ফিরিযে নিচ্ছে| এরকম পরিস্থিতিতে সামনেই গুজরাটে নির্বাচন আছে| নির্বাচনকে সামনে রেখে তারা মেরুকরণ সৃষ্টি করছে|
বিজেপি প্রথম থেকেই মেরুকরণের রাজনীতি করে আসছে| এভাবে তারা হিন্দু“মুসলিমকে কেন্দ্র করে উসকানিমূলক ইসু্য সামনে নিযে আসে| তাদের মন্ত্রীদের দিযে বিভিন্ন মন্তব্য করায|

মুসলমান দের পক্ষ থেকেও এসেছি প্রতিক্রিয়া

কিন্তু  মানুষ এসব বিষয উপলব্ধি করতে পেরেছে| আগামী লোকসভা নির্বাচনে তাদের ফল যে ভালো হবে না তা বোঝাই যাচ্ছে|’
তিনি বলেন, সরকারের ওই বিভেদের রাজনীতি ভুলে গিযে ঐক্যের বিষয সামনে রাখা প্রযোজন| ভারত ঐক্যের দেশ| এখানে বিভিন্ন ভাষাভাষী মানুষরা মিলনের সঙ্গে বাস করে আসছে|
সেই চিরাচরিত ঐতিহ্য যাতে ক্ষুণ্ণ না হয সেজন্য সরকারের দৃষ্টি দেযা প্রযোজন| ‘দেশে হিন্দুর সংখ্যা কমছে অথবা মুসলিম সংখ্যা বাড়ছে কিংবা অযোধ্যা ইসু্য এসব বিষয সামনে না এনে মানুষের প্রকৃত কল্যাণের দিকে নজর দেযা প্রযোজন বলেও ‘ওযেফেযার পার্টি অব ইন্ডিযা’র রাজ্য সম্পাদক সারওযার হাসান মন্তব্য করেন|

You might also like More from author

Comments

Loading...