ব্যায়াম প্রশিক্ষকই কি ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী? বিপ্লব দেবের নাম সবচেয়ে আগে

বিপ্লব দেবের
আগরতলা (এজেন্সী) – বলা যায়, পুরো রাজ্যে গেরুযা ঝড়ে কার্যুত উড়ে গেল লাল দুর্গ| ত্রিপুরায় ঐতিহাসিক এ ফলাফল শেষে এখন আলোচনার বিষয় কে হতে যাচ্ছেন রাজ্যের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী| ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, একজন ব্যায়াম প্রশিক্ষক বিপ্লব দেবের নামই চলছে সবচেয়ে আগে। হয়তো তিনিই হতে যাচ্ছেন এ রাজ্যর মুখ্যমন্ত্রী| তবে বিজেপির পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে এখন নিশ্চিত করে কিছু বলা হয়নি|

 

উত্তর পূর্ব ভারতের ত্রিপুরায় গেরুযা ঝড়ে উড়ে গেল বাম দুর্গ| সর্বশেষ খবর অনুযাযী, একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে বিজেপি| ২৫ বছরের বাম শাসনের অবসান| আঞ্চলিক দল আইপিএফটির সঙ্গে জোট বেঁধে টানা ২৫ বছরের বাম শাসনকে কার্য ত উড়িয়ে দিলেন বিজেপি প্রার্থীরা| ৫৯টি কেন্দ্রের মধ্যে বিজেপি জোট ৪৩টি আসনে জযী| কংগ্রেস এ রাজ্য কোনো আসন পায়নি| বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের সিপিএম ১৬টি আসনে জয় ধরে রেখেছে|
ত্রিপুরা রাজ্য বিজেপির সভাপতি বিপ্লব দেব| তিনি কেন্দ্রের ক্ষমতায় থাকা দলটির সবচেয়ে কম বয়সী রাজ্য সভাপতি| ত্রিপুরা বিজেপির দাযিত্ব পান ২০১৬ সালে ৭ জানুযারি| এই যুবক নেতা মাত্র দুই বছরের মাথায় ২৫ বছরের বাম শাসনের পতন ঘটিয়ে লাল থেকে গেরুযা রঙে রাঙিয়ে দিলেন ত্রিপুরাকে|
অন্য অনেকের নাম মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আলোচনা থাকলেও অন্য অনেকের চেয়ে সবচেয়ে এগিয়ে আছেন বিপ্লব দেব| তাঁর হাতেই ত্রিপুরার ভার সঁপে দেওযা হতে পারে| বিপ্লব সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী হতে প্রস্তুত আছি| তবে দলের সিদ্ধান্তই শেষ কথা|’
দুই বছরের ক্যারিশমা
বিপ্লব দেব ত্রিপুরা রাজ্য বিজেপির দাযিত্ব পান ২০১৬ সালের ৭ জানুযারি| এই যুবক নেতা মাত্র দুই বছরের মাথায় ২৫ বছরের বাম শাসনের অবসান ঘটালেন| ত্রিপুরা বিজেপির দাযিত্ব কাঁধে তুলে নেওযার পরই ক্যারিশমা দেখালেন বিপ্লব| অমিত শাহ“মোদির জুটির আস্থা ছিল বিপ্লবের ওপর| সেই আস্থার প্রতিদান দিলেন তিনি|
আস্থার প্রতিদান
বিপ্লব আরএসএসে থাকায় কখনো অন্য কোনো দলের প্রতি আকৃষ্ট হননি| সেটা মাথায় রেখেই কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব বিপ্লবের ওপর আস্থা রাখেন| সেই আস্থার প্রতিদানে দলকে রাজ্যের ক্ষমতায় আনার পেছনে কাজ করেছেন তিনি| এর আগে বিপ্লব দিল্লি ও মধ্যপ্রদেশের বিজেপির হয়ে কাজ করেছেন|
নতুন পদ পেয়ে রাজ্য জয়
বিপ্লবের আগে ত্রিপুরায় দলের নেতৃত্বে ছিলেন সুধীন্দ্র দাশগুপ্ত| অনেক বছর বিজেপির রাজ্য সভাপতি ছিলেন তিনি| তবে বিপ্লবের সভাপতি হওযার পর বিজেপির বিজয়ে দিকে গেরুযা দৌড় শুরু হয়| এবারের ভোটে ত্রিপুরার বনমালিপুর আসন থেকে লড়েছেন বিপ্লব| এ আসনটি ছিল কংগ্রেসের|
ব্যাযাম প্রশিক্ষক
ত্রিপুরার ভূমিপুত্র বিপ্লব দেব অনেক দিন ধরে আরএসএসের সঙ্গে যুক্ত| ত্রিপুরার গোমতী জেলায় উদয়পুরে জন্ম| ৪৯ বছর বয়সী দুই সন্তানের জনক বিপ্লব প্রায় ১৫ বছর দিল্লিতে কাটিয়েছেন| সেখানে একটি ব্যাযামাগারের প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করতেন|
বিপ্লবের স্ত্রী নীতি দেব পাঞ্জাবের মেয়ে দিল্লিতে দুজনের বিয়ে বিপ্লব সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমি সব সময় বিপ্লবকে নির্বাচনে সাহায্য করেছি| ছেলে দশম শ্রেণিতে পড়ায় ত্রিপুরায় আসতে পারিনি| তবে দল জেতায় এবার পাকাপাকি ত্রিপুরায় এসে থাকতে চান বলে জানিয়েছেন নীতি| নরেন্দ্র মোদি বনাম মানিক সরকারের লড়াইয়ে জিতল নরেন্দ্র মোদির বিজেপিই| মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার কোনোরকমে নিজের আসনটি বজায় রাখতে পারলেও তাঁর মন্ত্রিসভার বেশির ভাগ সদস্যই পরাস্ত হয়েছেন|
Please follow and like us:
Loading...