প্রিযজনের থেকে আঘাতও পেয়েছিলেন সচিন কর্তা, শরীর খারাপের সময় অনেক লোক সাথে দাড়ায় নি

0 108

অভিজিত্ রায
১৯৭৪ সাল| সেদিনর বম্বে ফিল্ম সেন্টার স্টুডিওতে কিশোর কুমারের গানের রেকর্ডিং|
পরিচালক হৃষীকেশ মুখার্জির ছবি| তাই রেকর্ডিঙের অনেক আগেই স্টুডিওতে পৌঁছে
গেছেন মিউজিক আরেঞ্জার বাবলু চক্রবর্তী ও তাঁর পার্টনর আশিস রায|
যদিও ময়ূজিশিয়ানরা  প্রায সকলেই তৈরি কিন্ত আশিস “ বাবলু র জুটি রেকর্ডিঙে কোন খামতি
রাখতে চাননি|

তাই দুজনে লেগে পরেছেন মুজিশিযানদের নিযে রিহার্সাল করতে| কারণ আজকের রেকর্ডিঙে
যে বিরাট চমক রযেে| প্রথমত গানের রেকর্ডিঙের সময মিক্সিঙে থাকবেন স্বযং পঞ্চমদা,
যদিও ছবির সুরকার তিনি নন বরং তাঁর পিতৃদেব সচিন দেব বর্মণ| এবং দ্বিতীযতঃ হিন্দি
ছবির গানের ইতিহাসে এই প্রথম কোন সুরকারের সাথে অ্যাসিস্ট্যান্ট সহ মিউজিক আরেঞ্জার
হিসেবে কাজ করে এসেছেন এমন সব দিকপাল মুজিশিযানরা একসঙ্গে কোন রেকর্ডিঙে বাজাবেন
যারা এখন আর তার সাথে কাজ করেননা|

রেকর্ডিঙের আগের দিন কিশোর কুমার অসুস্থ সচিনদা র সাথে দেখা করে তাঁকে কথা দিযে
এলেন যে তাঁর এই গান সুপার হিট হবেই| যথা সময কিশোর দা স্টুডিওতে এলেন এবং রেকর্ডিং
শুরু হল|
গানের প্রিলুডে বাজানো চেলোর পিসটা বাজিযেিলেন বাবলুদার সম্পর্কে কাকা বাসুদেব চক্রবর্তী|
এ ছাড়া ও ছিলেন স্যাক্সোফোনে মনোহারি সিং, রিদমে মারুতি রাও কীর, অনিল মোহিলে,
অরুণ পোডবাল, কেরসি লর্ড প্রমুখ|

কর্তা, মিলি ছবির গান রেকর্ড করেছিলো

যোগেশের লেখা সেই বিখ্যাত গানটি হল মিলি ছবির বডি সুনি শুনি হায যা রেকর্ড করেছিলেন
সাউন্ড রেকর্ডিস্ট জর্জ ডি ক্রুজ|
সচিন কর্তার জীবনের এটাই শেষ ছবি যা তিনি শেষ করতে পারেননি, করেছিলেন তাঁর স্বনামধন্য
পুত্র রাহুল দেব বর্মণ|
ছবিটি রিলিজ করেছিল ২০ জুন ১৯৭৫, কর্তার মারা যাওযার ঠিক চার মাস ১০ দিন আগে|
ছবির পরিচালক হৃষীকেশ মুখার্জি যে সুযোগটা কর্তাকে দিযেিলেন তা কিন্ত তাঁর অনেক সতীর্থরাও
তাকে দিতে পারেননি|

ষাটের দশকে কর্তা যখন প্রথমবার গুরুতর অসুস্থ হযে পড়লেন তখন কিন্ত তার অনেক পরিচিত
প্রযোজক “ পরিচালক বন্বুরা তাকে তাঁদের ছবিতে না নিযে অন্য সুরকার কে দিযে কাজটা করিযে
নিয়েছিলেন|
সেই সময শক্তি সামন্ত তার কশ্মির কি কলি ছবির সুরকার বেছে নেন ও পি নাইযার কে|
পরে অ্যান ইভিনিং ইন প্যারিস এ শঙ্কর জযকিশন কে সুরকার হিসেবে সাইন করেন শক্তি সামন্ত|
গুরু দত্তও তার পরবর্তী ছবি বাহারে ফির ভি আযেি তে নিযেিলেন মদন মোহন কে যিনি কর্তার
প্রথম ছবি শিকারি তে অ্যাসিস্ট্যান্ট ছিলেন| প্রমোদ চক্রবর্তী ও তার বহুচর্চিত ছবি লাভ ইন
টোকিও তে শঙ্কর জযকিশন কে নিযেিলেন|
এঁদের প্রত্যেকের ছবির এককালে সুরকার ছিলেন সচিন দেব বর্মণ| সে সময এক মাত্র দেব আনন্দই কর্তাকে কাজ দিযেিলেন তাঁর গাইড ছবিতে| যা এখন এক ইতিহাস|

You might also like More from author

Comments

Loading...