পিতার হত্যাকারীদের ক্ষমা করেছেন রাহুল ও প্রিযাংকা, প্রথম বার এই ব্যাপারে মুখ খুললেন

0 34
নযা দিল্লি (এজেন্সী) – কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী বলেছেন, তিনি ও তার বোন প্রিযাঙ্কা গান্ধী তাদের পিতা রাজীব গান্ধীর হত্যাকারীদের সম্পূর্ণ ক্ষমা করে দিয়েছেন| সিঙ্গাপুরে আইআইএম এ্যালুমিনি অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন পিতার হত্যাকারীদের ওপর আমাদের ক্ষোভ ছিল| আমরা বছরের পর বছর অস্বস্তিতে ছিলাম|
কিন্তু যেভাবে হোক এখন আমরা তাদের ক্ষমা করে দিয়েছি|পিতার হত্যা আমরা মেনে নিতে পারিনি|
এ হত্যাকাণ্ড গভীর প্রভাব ফেলেছে আমাদের জীবনে| দীর্ঘদিন এই বিষয় নিযে আমরা মন্তব্য করার মতো অবস্থাতেই ছিলাম না|
রাগ, ক্ষোভে মনের ভিতরটা ফেটে পড়েছিল| কিন্তু গত কযে বছরে সব কিছুকে স্বাভাবিক করে ফেলেছি| আমি আর প্রিযাঙ্কা পিতার হত্যাকারীদের একেবারে ক্ষমা করে দিয়েছি |’
১৯৯১ সালের ২১ মে তামিলনাড়ুতে নির্বাচনী জনসভায় এলটিটিই“র এক মহিলা আত্মঘাতী জঙ্গি রাজীবকে হত্যা করেন| প্রায় ২৭ বছর পরে এই ঘটনা সম্পর্কে মুখ খুললেন রাহুল|এ হত্যাকাণ্ডের সাথে শ্রীলঙ্কার এলটিটিই নেতা প্রভাকরণ জড়িত ছিলেন|
রাহুল আরও জানান, ‘আমার দাদিকে হত্যা করা হয় আমার বাবাকে হত্যা করা হয় | এখন মনে হয় সারাদিন বডিগার্ড নিযে ঘুরলেও কোনও সুবিধা পাওযা যায় না !
তিনি বলেন, এধরনের হত্যাকাˆন্ডˆ যখন ঘটে তখন বিভিন্ন মতাদর্শ, ধ্যান“ধারণা ও দলের মধ্যে সংঘর্ষ বিদ্যমান থাকে| এজন্যে আমাদের খেসরত দিতে হয়েছে|
আমার মনে পড়ে যখন আমি টেলিভিশনে প্রভাকরণের লাশ দেখেছিলাম, তখন দুই ধরনের অনুভূতি হয়েছিল| কেন তারা তাকে এভাবে মারল|
এবং দ্বিতীয়ত নিহত প্রভাকরণের ছেলেমেযে কথা ভেবে আমার মনে গভীর সহানুভূতির সৃষ্টি হয়েছিল| তাই যখনি কোনো সন্ত্রাসের ঘটনা ঘটে, তার পেছনে যেই থাকুক, আমার মনে হয় তার পেছনে এক ব্যক্তি আছে, একটি পরিবার আছে, তাদের ছেলেমেযে কান্না আছে|
এসব কারণে আমি গভীর বেদনা অনুভব করি| আমি ও আমার বোন তাই মানুষকে ঘৃণা করতে পারি না|
রাহুল আরো বলেন, আমার পিতা ও দাদিকে হত্যা করা হয়েছে| রাজনীতিতে গণবিরোধী শক্তির মোকাবেলায় দাঁড়ালে আপনাকে হত্যা করা হবে এটা সুস্পষ্ট|
১৪ বছর বয়সে যাদের সঙ্গে ব্যাডমিন্টন খেলেছি তারাই আমার দাদিকে হত্যা করেছে| তাই আমার শৈশব বা জীবন খুব একটা সুখকর পরিস্থিতির মধ্যে দিযে অতিবাহিত হয়নি|

You might also like More from author

Comments

Loading...