নিফট হবে ইন্সটিটিউট অফ ন্যাশানাল ইম্পোর্টস – রঘুবর দাস

নিফট

রাঁচি (সং) – নিফটকে ইন্সটিটিউট অফ ন্যাশানাল ইম্পোর্টস হিসাবে ঘোষণা করারই প্রস্তাবনা রাখা হবে| মুখ্যমন্ত্রী শ্রী রঘুবর দাস নিফটের দ্বারা এক্সিলেন্স ইন ম্যানুফ্যাকচার অ্যান্ড দা নিউ হোরাজাইন ম্যাপিং দা পাথ ওযে বিষযে অনুষ্ঠিত দু দিনের রাষ্ট্রীয কার্যডশালার উদ্বোধন করার সমযে এই কথাগুলি বললেন|

তিনি জানালেন ন্যাশানাল ইন্সটিটিউট অফ ফাউন্ড্রি অ্যান্ড ফোর্জ টেকনোলজির মত প্রতিষ্ঠিত সংস্থা যা ঝাড়খণ্ডের জন্য একটি গর্বেরই বিষয বলেই মনে করছেন| নিফটের মানব সম্পদ শক্তিতে ঝাড়খণ্ডের গর্ব অনুভব হয| নিফট এই সংস্থার পঞ্চাশ বর্ষ পুর্ন হওযার বিষযে মুখ্যমন্ত্রী অভিনন্দন জানালেন|

যুবকদের উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রী শ্রী রঘুবর দাস বললেন যুবকেরাই ভারতের ভবিষ্যত্| তিনি এও জানালেন যুবকদের উপার্জনের পথটি খোলার জন্য সবথেকে গুরুত্বপুর্ন তাদের কৌশল শক্তির উন্নতি| দেশের ইতিহাসে এই প্রথম যুবকদের কৌশল শক্তির উন্নতির জন্য প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর বিশেষ নজরে আলাদা মন্ত্রক তৈরি হওযা সাথে সেটি সুনিযোজিতভাবে প্রযাস চালানো হযেে|

আর এই সরকারও সেই অনুরুপে কৌশল উন্নযনের দিকে বিশেষ নজর দিযেে| ঝাড়খণ্ড সরকারও যুবকদের জন্য কৌশল বিকাশ অভিযান চালিযে অগ্রসর হচ্ছে| উন্নযনশীল দেশগুলির ক্ষেত্রে যেখানে ৮০ যুবক কৌশল ক্ষমতা সম্পন্ন হচ্ছে সেখানে আমাদের দেশ ১০ এর কাছাকাছিতেই আছে তবে দেশের জনসংখ্যার মধ্যে ৬০ যুবকেরাই আছে|

স্বামী বিবেকানন্দের স্বপ্ন ছিল ভারত বিশ্ব গুরুতে পরিনত হবে| রাজ্য সরকার বিবেকানন্দের জন্মবার্ষীকিতে পঁচিশ হাজার যুবককে সরাসরি রোজগার প্রদান করছে| এখানে এমন সব যুবকেরা আছে যারা উচ্চ শিক্ষা পাযনি কিন্তু তাদের কৌশল বিকাশের মাধ্যমে তৈরি করে রোজগার দেওযা হছে|

মুখ্যমন্ত্রী এও বললেন এই কার্যরশালাতে এই বিষযে দিকে নজর রাখা আমাদের দেশের ম্যানুফ্যাকচারিং সংস্থাতে যে প্রোডাক্ট তৈরি হবে তার গুনমান যেন সর্বশ্রেষ্ঠ থাকে অর্থাত্ সেই উত্পাদন দুনিযাতে নিজের স্থান করে নিতে পারে| মুখ্যমন্ত্রীর মতে উত্পাদনের প্যাকেজিং যথেষ্ট গুরুত্বপুর্ন বিষয, উত্পাদন ভালর সাথে সেটির প্যাকেজিং ভালো হলে তা বিশ্ব দরবারে মান পাবে|

তিনি আরও বললেন রাজ্যের উপজাতীয সমাজের হস্তশিল্প অত্যন্ত উন্নতমানের, তবে সেটিকে রাষ্ট্র স্তরে আধুনিকভাবে প্রস্তুত করার জন্য নিফটপ্রযাস রাখবে| ঝাড়খণ্ড রাজ্যের পারম্পরিকভাবে যে কৌশল প্রতিভা বর্মান আছে, এখানের গ্রামেতে যেসব যোগ্য মানুষ আছে নিফট তাদেরকে তাদেরকে বিকশিত করতে নিজের ভুমিকা পালন করবে কিভাবে সেই বিষযে কার্যেশালাতে বিচার বিমর্শ করবে|

কার্যেশালাতে রাঁচি বিশ্ববিদ্যালযে উপাচার্যি প্রোফেসর রমেশ কুমার পান্ডে, কেন্দ্রীয সরকারের মানব সম্পদের সংযুক্ত সচিব শ্রী মধু রঞ্জন কুমার, শিল্প সচিব শ্রী সুনীল কুমার বর্নবাল, আই আই টি খড়গপুরের পুর্ব পরিচালক প্রফেসর অমিতাভ ঘোষ, নিফটের চেযারম্যান প্রফেসর পি পি চট্টোপাধ্যায, এইচ ই সির চেযারম্যান শ্রী অভিজিত ঘোষ, আই ই আইএর চেযারম্যান শ্রী সঞ্জয সিংহ তথা ডঃ বিজয টোপ্পো, সংস্থার প্রফেসর, আর কার্য্শালাতে অংশগ্রহণ করতে আসা অতিথি এবং অনেক ছাত্র এবং ছাত্রীরাও উপস্থিত ছিলেন|

Please follow and like us:
Loading...