ঝারখন্ডের ডিএবাই এবং রেডি টূ ইট মিল দেওয়ায় চলছে অন্য খেলা

ঝারখন্ডের
সংবাদদাতা
রাঁচি – ঝাড়খণ্ডের রাজ্যের লাইভলী হুড স্কীম ও  দীনদয়াল অন্তোদয় যোজনা পূরোপুরি দুর্নীতিগ্রস্ত হয়ে পড়েছে। এছাড়া ওখানে চলছে টাকার খেলা আর নিজের লোকেদার চাকরি পাইয়ে দেওয়ার চেষ্টা। এই দু’টি স্কিমগুলিতে নতূন নতূন নিয়ম বানিয়ে যা খুশি তাই করে চলেছে কিছূ লোক।
ভেতরের খবর যে এই ধরনের কাজে আপত্তি জানিয়েছিলেন দুই অফিসার। তাদের রাতারাতি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।
ভেতরের খবর যে রেডি টু ইট মিলের টেন্ডার যে সব কম্পানিকে দেওয়া হবে, সেটা আগে থেকেই ঠিক হয়ে আছে। এর মধ্যে প্রশ্ন তোলার জন্যেই সরে যেতে হয়েছে দূজন অফিসারকে। আদেশ দিয়ে যেসব কাজ এই দূটিতে চলছে তাতে পরে এখান থেকে দূর্নীতির বড় খবর বেরিয়ে আসতে পারে।
এনআরএলএম এর আওতায় দীনদয়াল যোজনা চালু হয়। এটা ঝারখন্ড লাইভলী হূড প্রোগ্রামের বড় কাজ। পূরো দেশে এর ওপর কাজ চলছে এক সাথে যোগ করা হয়েছে জোহার যোজনাকে। এই গুলির টাকা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক। তাই লূটেপুটে সরকারি টাকা মেরে দেবার সব রকমের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কিছু লোক।
এই কাজ গুলো করার জন্য চাই প্রচুর লোক। তার জন্য সিডস নামের একটি এজেন্সিকে কাজ দেওয়া হয়েছিলো। এই এজেন্সির কর্তা হটাত চাকরি নিয়ে চলে এলেন এই বিভাগে। এখন তিনিও এই খেলায় যোগ দিয়েছেন।
সৃজন ইন্ডিয়ার অধীন যে এজেন্সিকে কাজের লোক নিয়োগ করার কাজ দেওয়া হয়েছিলো, তার ডাইরেক্টার কি করে এখানে এলো, সেটা বূঝলেই বাকি জিনিস গুলো বূঝতে কষ্ট হবে না।
এই ব্যাপারে যত তথ্য অনুস্ধান করা হচ্ছে প্রতি বারেই বেরিয়ে আসছে নতূন নতূন খবর। চাকরি দিয়ে লিখিত পরীক্ষা এবং ইন্টারভ্য়ূ তে ৫০-৫০ নম্বর দেওয়া হচ্ছে। লিখিত পরীক্ষার ৭০ থেকে ৮০ অংক দেওয়ার পরে লোকেদের ডাকা হয় ইন্টারভ্য়ূতে। এখানে দূটোই ৫০-৫০ নম্বরের। কারণ ইন্টারভ্য়ূ তে ৫০ নম্বর না রাখলে মনের মতন লোক পাওয়া যাবে না, যে পুতুল হয়ে কাজ করতে রাজি হবে।
প্রচুর টাকার গন্ধ পেয়ে চলে এসেছে অনেক পার্টী, যারা জানে বালু থেকে তেল কি করে বের করতে হয়।
তাই প্রশ্ন উঠচে যে রেডি টূ ইট মিল এবং লাইভলী হূড মিশনের কোটি কোটি টাকা গুলো আসলে কে মেরে দেওয়ার চেষ্টায় আছে।
Please follow and like us:
Loading...