ইনকাম ট্যাক্স কমিশনার শ্বেতাভ সুমন এরেস্ট, সিবিআই করেছে মামলা

ঝারখন্ডের নিবাসী হচ্ছেন শ্বেতাভ, পশু খাদ্য কেলেংকারির তদন্তে ছিলে

0 10
ভূপেন গোস্বামী

গুবাহাটীঃ ইনকাম ট্যাক্স কমিশনার শ্বেতাভ সুমন কে এরেস্ট করেছে সিবিআই। তার সাথ কিছূ অফিসার এবং চাটার্ড একাউন্টেঁট ও ব্যাপারী এই মামলা ফেঁসেছে। যাদের এখন অব্দি এরেস্ট বলা হয়েছে তার ভেতরে ইনকাম ট্যাক্স অফিসার প্রতাপ দাস ও আছেন। সী এ রমেশ গোয়েনকা এবং কিছূ আরও লোকের ব্যাপারে সিবিআই এখন অব্দি কিছূ বলে নি।
ঝারখন্ডের পোস্টিংগ থাকার সময় শ্বেতাভ সুমন খুব নাম করেছিলেন।

পশু খাদ্য কেলেংকারিতে তদন্তকারী অফিসারদের ভেতরে তার নাম প্রায়ই আসতো।
পরে জামশেদপুরে থাকা কালীন তিনি অন্য ধরনের ঘটনার সাথে যূক্ত হবার জন্য বদনাম হয়েছিলেন।
গুবাহাটী থেকে সিবিআই জানিয়েছে যে সুমন গুবাহাটির সাথে সাথে জোরহাটের ও চার্জে ছিলেন।
সেই সময় তিনি ওখানের এক বিজনেসম্যান কে ভূল লাভ দিয়েছেন।
ব্যাপারীর নাম সুরেশ অগ্রবাল। তার শেল কম্পানীর টাকা বাঁচাবার জন্য সুমন নিজের
অফিসিয়াল পদের ভূল উপযোগ করেছেন।
বলা হয়েছে যে এর জন্য তিনি ৫০ লাখ টাকা পেতেন।

শ্বেতাভ সুমন কে এরেস্ট করার সাথে পাওয়া গেচে ৪০ লক্ষ

শ্বেতাভ সুমন কে এরেস্ট করার সময় এক দালালের কাছ থেকে সিবিআই ৪০ লাখ টাকা পেয়েছে।
সিবিআই জানিয়েছে যে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অফিসারেরা স্বীকার করেছেন যে তারা নিজেদের অফিসিয়াল পদ মর্যাদার ভূল প্রয়োগ করেছেন।
সিবিআই একসাথ গুবাহাটী, জোরহাট, নৌগাঁব, শিলাংগ, নোএডা, দিল্লী ছাড়া কয়েকটি জায়গায় তল্লাশী চালিয়েছে। এই তল্লাশীতে পাওয়া গেছে কিছূ জরূরী পেপার।
সিবিআইয়ের কাছে খবর ছিলো যে সুরেশ অগ্রবালের শেল কম্পানি মেসর্স বিন পাওয়ার ইফ্রা প্রাইভেট লিমিটেডের ট্যাক্স রিটার্নে এই গোলমাল করা হয়েছিলে।
গত ১১ অপ্রিল কেস দাখিল করার পরে সিবিআই এই রেড করে এবং টাকা ও রেকার্ড পাওয়ার পর অফিসারেদের এরেস্ট করেছে। এর সাথেই অন্য কয়েক জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

You might also like More from author

Comments

Loading...