অস্ট্রেলিযার সমুদ্র সৈকতে পাওয়া গেছে বিশ্বের সবচেযে পুরনো বার্তাবাহী বোতল

বোতল
পর্থ (এজেন্সী) – বোতলের ভেতরে রাখা বার্তা সমুদ্রে ভাসতে তীরে এসে পৌঁছেছে এরকম নাটকীয় ঘটনা আমরা সিনেমা গল্প উপন্যাসে পেযে থাকি| বাস্তবেও এরকম ঘটনার কথা মাঝে মধ্যে শোনা যায়| কিন্তু অস্ট্রেলিযার পশ্চিমাঞ্চলে সমুদ্র সৈকতে এখন বার্তাবাহী এমন একটি বোতল উদ্ধার করা হয়েছে যা এযাবত্ কালের মধ্যে সবচেযে পুরনো বলে ধারণা করা হচ্ছে|
এই বোতলের ভেতরে জার্মান ভাষায় লেখা কিছু বার্তা গুটিযে ভাঁজ করে ভরে দেওযা হয়েছে| ওই কাগজে সাল তারিখ হিসেবে ১৮৮৬ সালের কথা লেখা রয়েছে| ধারণা করা হচ্ছে, বোতলটি জার্মানির একটি জাহাজ থেকে ছুঁড়ে ফেলা হয়েছিলো ভারত মহাসাগরে| এবং সামুদ্রিক স্রোতের গতিপথের উপর পরীক্ষা চালানোর জন্যে এই বোতলটি নিক্ষেপ করা হয়েছিলো|
যে নারী টনিযা ইলম্যান বোতলটি প্রথম দেখতে পান তিনি মনে করেছিলেন বিষয়টি সত্য ঘটনা নয়| কেউ হয়তো মজা করার জন্যে এরকম একটা ঘটনা তৈরি করেছে| কিন্তু পরে অস্ট্রেলিযার একটি জাদুঘর বোতলের ভেতরের বার্তাটির সত্যতা নিশ্চিত করেছে|

বোতল ফেলা হয়েছিলো ১৩২ বছর আগে

পার্থ শহরের একটি পরিবার এই বোতলটি সমুদ্র সৈকতে কুড়িযে পেয়েছে| বিশ্লেষকরা বলছেন, ১৩২ বছর আগে বোতলটি সমুদ্রে ছুঁড়ে ফেলা হয়েছিলো| টনিযা ইলম্যানের স্বামী কিম ইলম্যান বলেছেন, বোতলের ভেতরে তারা কিছু কাগজ দেখতে পান কিন্তু সেগুলো যে কী সে বিষযে তাদের কোন ধারণা ছিলো না|
তারা সেটি বাড়িতে নিযে যান এবং আভেনের ভেতরে ঢুকিযে ভালো করে শুকিযে নেন| দেখতে পান, বোতলের ভেতরে রাখা কাগজে লেখা রয়েছে ১২ই জুন ১৮৮৬|
বলা হচ্ছে, জার্মান ন্যাভাল অবজারভেটরি থেকে এই বোতলটি সমুদ্রে ফেলা হয়েছিলো জাহাজের রুট সম্পর্কে কিছু ধারণা পাওযার জন্যে|
এর আগে এরকম বোতলের ভেতরে সবচেযে পুরনো যে বার্তা পাওযা গিয়েছিলো সেটি ছিলো ১০৮ বছরের পুরনো| টনিযা ইলম্যান বোতলটি কুড়িযে পাওযার পর ভেবেছিলেন এটিকে তিনি তার বুক শেল্ফে সাজিযে রাখবেন| কিন্তু পরে তিনি দেখতে পান এর ভেতরে কিছু একটা লেখা| সেখানে উল্লেখ করা আছে কেউ যদি এই বোতলটি কুড়িযে পান তাহলে জার্মান কনসু্য়লেটের সাথে যোগাযোগ করুন| সেখানে জাহাজের নামও উল্লেখ রয়েছে“ পাওলা|
তখন তাদের সন্দেহ হয় যে এটা গুরুত্বপূর্ণ কিছু হতে পারে| তারা অনলাইনে বোতলটি নিযে গবেষণা করেন এবং এক পর্য্যায়ে যোগাযোগ করেন ওযে্টার্ন অস্ট্রেলিযান মিউজিযামের বিশেষজ্ঞদের সাথে|
ওই জাদুঘরের সহকারী কিউরেটর রস এন্ডার্সন জার্মানি ও নেদারল্যান্ডসের কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করে বার্তাটির সত্যতা নিশ্চিত করেন|
তিনি বলেন, আশ্চর্যরজনক হলেও, জার্মানির আর্কাইভে খোঁজ নিযে পাওলা জাহাজের সন্ধান পাওযা গেছে| সেখানে ১৮৮৬ সালের ১২ই জুনের কথাও উল্লেখ আছে| তাতে নাবিক মন্তব্য লিখে রেখেছেন যে এরকম একটি বোতল জাহাজ থেকে সমুদ্রে ছুঁড়ে ফেলা হয়েছে| এসব দিন তারিখ মিলিযে বার্তাটির সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওযা যায়|
তিনি বলছেন, ভারত মহাসাগরের দক্ষিণ“পূর্ব এলাকায় এটি ছুঁড়ে ফেলা হয়েছিলো এবং সম্ভবত ১২ মাস ধরে সমুদ্রে ভাসতে ভাসতে অস্ট্রেলিযান পশ্চিম তীরে এসে পৌঁছায়| তারপর বোতলটি বালির নিচে চাপা পড়ে গিয়েছিলো| বোতলটি এখন দর্শনার্থীদের জন্যে জাদুঘরে রেখে দেওযা হয়েছে|
ইলম্যান পরিবারটি বলছে, এই বোতলটি পাওযার ঘটনা তাদের জীবনের সবচেযে নাটকীয় এক বিষয়|
বলা হচ্ছে, ৬৯ বছর ধরে চালানো জার্মানির এই পরীক্ষার সময় ৬৬২টি বার্তাবাহী বোতল সমুদ্রে ছুঁড়ে ফেলা হয়েছিলো এবং তার মধ্যে এখনও পর্যতন্ত একটি বোতলও ফিরে আসেনি|
এধরনের নোট লেখা শেষ বোতলটি পাওযা গিয়েছিলো ১৯৩৪ সালে, ডেনমার্কে|
Please follow and like us:
Loading...